ঢাকা ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ২০২২ উপলক্ষে গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের মানবন্ধন

অনলাইন ডেস্ক:
  • প্রকাশিত সময় ০৫:২১:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২
  • / 49

গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের উদ্যোগে আজ ২৫ নভেম্বর ২০২২ (শুক্রবার) রাজধানীর পল্টন মোড়ে আয়োজিত মানবন্ধন।

গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তি এবং আইএলও কনভেনশন ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থনের দাবি

গৃহশ্রমিকদের অধিকার, মযার্দা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তি এবং আইএলও কনভেনশন ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থনের দাবি জানিয়েছেন ট্রেড ইউনিয়ন ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা। আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ২০২২ উপলক্ষে গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের উদ্যোগে আজ ২৫ নভেম্বর ২০২২ (শুক্রবার) রাজধানীর পল্টন মোড়ে আয়োজিত মানবন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা এ দাবি জানান।

এ বছরের প্রতিপাদ্য ছিল “সবাই মিলে ঐক্য গড়ি, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি”। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সা¤প্রতিক সময়ে গৃহকর্মে নিযুক্ত শ্রমিকদের উপর নির্যাতন, হত্যা, ও মানবাধিকার লংঘনের মতো প্রভৃতি ঘটনা উদ্বেগজনক ভাবে বেড়ে গেছে।

ুদেশব্যাপী গৃহশ্রমিকদের সুরক্ষায় প্রণীত ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি ২০১৫’ বাস্তবায়ন না হওয়ায় দেশে একের পর এক গৃহশ্রমিকের মৃত্যু ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

তারা বলেন, বিচারহীনতার কারণে দোষীরা বার বার গৃহশ্রমিকদের উপর নির্যাতনের সাহস পায়। যদি এসব ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হয়, তাহলে সেই ভয়ে আর কেউ গৃহশ্রমিকদের নির্যাতনের সাহস দেখাবে না।

এসময় বক্তারা আইএলও কনভেনশন – ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থন করাসহ সারাদেশে গৃহশ্রমিকদের নিরাপত্তা রক্ষায় ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি – ২০১৫’ বাস্তবায়ন, শ্রম আইনে গৃহশ্রমিকদের অন্তর্ভুক্ত করা, গৃহশ্রমিকদের মামলায় সরকারিভাবে আইনি সহায়তা প্রদান, সব গৃহশ্রমিকের কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করা, নির্যাতনে নিহত শ্রমিক পরিবার ও আহত শ্রমিকদের ন্যায়সঙ্গত ক্ষতিপূরণ প্রদান, আহত শ্রমিকদের চিকিৎসা ব্যয় নিয়োগকারী কর্তৃক বহন করা, নিহত শ্রমিক পরিবার ও আহত শ্রমিকদের স্থায়ী পুনর্বাসন এবং গৃহশ্রমিকদের নিযার্তন থেকে রক্ষা ও প্রকৃত অবস্থা যাচাই করতে নিবন্ধন ও পরিদর্শন কার্যক্রম চালু করার দাবি জানান।

গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ—বিলস এর নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, বাংলাদেশ শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এ এ এম ফায়েজ হোসেন, জাতীয় গার্হস্থ্য নারী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মুর্শিদা আখতার, গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের সদস্য সচিব ও বিলস পরিচালক নাজমা ইয়াসমীন, উপপরিচালক ও প্রকল্প সমন্বয়কারী মোঃ ইউসুফ আল—মামুন, সবুজের অভিযান এর প্রকল্প সন্বয়কারী কবীর হোসেন, ডেমোক্রেসি ওয়াচ এর প্রকল্প সমন্বয়কারী রেফায়েত আরা, দুস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রকল্প সমন্বয়কারী রাজশ্রী গায়েন, কর্মজীবী নারীর প্রকল্প সমন্বয়কারী ফারহানা আফরীন তিথি সহ বিল্ধসঢ়;স ও গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কভূক্ত মানবাধিকার সংগঠন, জাতীয় ট্রেড ইউনিয়ন ফেডারেশন ও নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দ। – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এই রকম আরও টপিক

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ২০২২ উপলক্ষে গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের মানবন্ধন

প্রকাশিত সময় ০৫:২১:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২

গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তি এবং আইএলও কনভেনশন ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থনের দাবি

গৃহশ্রমিকদের অধিকার, মযার্দা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তি এবং আইএলও কনভেনশন ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থনের দাবি জানিয়েছেন ট্রেড ইউনিয়ন ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা। আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ২০২২ উপলক্ষে গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের উদ্যোগে আজ ২৫ নভেম্বর ২০২২ (শুক্রবার) রাজধানীর পল্টন মোড়ে আয়োজিত মানবন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা এ দাবি জানান।

এ বছরের প্রতিপাদ্য ছিল “সবাই মিলে ঐক্য গড়ি, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি”। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সা¤প্রতিক সময়ে গৃহকর্মে নিযুক্ত শ্রমিকদের উপর নির্যাতন, হত্যা, ও মানবাধিকার লংঘনের মতো প্রভৃতি ঘটনা উদ্বেগজনক ভাবে বেড়ে গেছে।

ুদেশব্যাপী গৃহশ্রমিকদের সুরক্ষায় প্রণীত ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি ২০১৫’ বাস্তবায়ন না হওয়ায় দেশে একের পর এক গৃহশ্রমিকের মৃত্যু ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

তারা বলেন, বিচারহীনতার কারণে দোষীরা বার বার গৃহশ্রমিকদের উপর নির্যাতনের সাহস পায়। যদি এসব ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হয়, তাহলে সেই ভয়ে আর কেউ গৃহশ্রমিকদের নির্যাতনের সাহস দেখাবে না।

এসময় বক্তারা আইএলও কনভেনশন – ১৮৯ ও ১৯০ অনুসমর্থন করাসহ সারাদেশে গৃহশ্রমিকদের নিরাপত্তা রক্ষায় ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি – ২০১৫’ বাস্তবায়ন, শ্রম আইনে গৃহশ্রমিকদের অন্তর্ভুক্ত করা, গৃহশ্রমিকদের মামলায় সরকারিভাবে আইনি সহায়তা প্রদান, সব গৃহশ্রমিকের কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করা, নির্যাতনে নিহত শ্রমিক পরিবার ও আহত শ্রমিকদের ন্যায়সঙ্গত ক্ষতিপূরণ প্রদান, আহত শ্রমিকদের চিকিৎসা ব্যয় নিয়োগকারী কর্তৃক বহন করা, নিহত শ্রমিক পরিবার ও আহত শ্রমিকদের স্থায়ী পুনর্বাসন এবং গৃহশ্রমিকদের নিযার্তন থেকে রক্ষা ও প্রকৃত অবস্থা যাচাই করতে নিবন্ধন ও পরিদর্শন কার্যক্রম চালু করার দাবি জানান।

গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ—বিলস এর নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, বাংলাদেশ শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এ এ এম ফায়েজ হোসেন, জাতীয় গার্হস্থ্য নারী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মুর্শিদা আখতার, গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের সদস্য সচিব ও বিলস পরিচালক নাজমা ইয়াসমীন, উপপরিচালক ও প্রকল্প সমন্বয়কারী মোঃ ইউসুফ আল—মামুন, সবুজের অভিযান এর প্রকল্প সন্বয়কারী কবীর হোসেন, ডেমোক্রেসি ওয়াচ এর প্রকল্প সমন্বয়কারী রেফায়েত আরা, দুস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রকল্প সমন্বয়কারী রাজশ্রী গায়েন, কর্মজীবী নারীর প্রকল্প সমন্বয়কারী ফারহানা আফরীন তিথি সহ বিল্ধসঢ়;স ও গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কভূক্ত মানবাধিকার সংগঠন, জাতীয় ট্রেড ইউনিয়ন ফেডারেশন ও নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দ। – প্রেস বিজ্ঞপ্তি