ঢাকা ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পাবনা মহিলা পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

পাবনা প্রতিনিধি:
  • প্রকাশিত সময় ০৩:১০:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২
  • / 74

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পাবনা মহিলা পরিষদের সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনাচ্ছেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কামরুন নাহার জলি। ছবি: স্বতঃকণ্ঠ


আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস—২০২২ কে কেন্দ্র করে “নারী ও কন্যা নির্যাতন বন্ধ করি, নতুন সমাজ নির্মাণ করি”, এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা শাখার লিগ্যাল এইড উপ—পরিষদের উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) ২০২২ খ্রি. বিকেলে শহরের পাওয়ার হাউজপাড়া বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনটির জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামরুন নাহার জলি। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৭০ খ্রি. ৪ এপ্রিল বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর দীর্ঘ ৫২ বছর যাবৎ সংগঠনটি নারীর অধিকার আদায়ের জন্য বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি জেলায় প্রত্যন্ত অঞ্চলে নারীর সম অধিকার ও মর্যাদার বিষয়টিকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে সংগঠনটি কার্যক্রম লক্ষণীয়। গড়ে উঠেছে নারী ও কন্যা শিশু নির্যাতন প্রতিরোধের সামাজিক আন্দোলন। আমরা লক্ষ্য করছি নারীর অবস্থানের ইতিবাচক পরিবর্তনের পাশাপাশি সমাজের ভেতরে মূল্যবোধের অবক্ষয় হচ্ছে; নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা বিশেষ করে, ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যা করার মতো ঘটনা অব্যাহতভাবে ঘটে চলেছে যা উদ্বেগ সৃষ্টি করছে। পাশাপাশি একটি ধর্মীয় উগ্রবাদী স¤প্রদায় নানা অপতৎপরতা চালিয়ে সমাজকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। ফলে সমাজের মধ্যে সাধারন মানুষ, সংখ্যালঘু স¤প্রদায় ও নারী নিরাপত্তাহীন এবং প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। যা নারী আন্দোলনকে উদ্বিগ্ন করে তুলছে।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ ধরণের পরিস্থিতিতে মনে করে গণসচেতনতা বৃদ্ধি এবং মনস্তাত্বিক পরিবর্তন ও বৈষম্যমূলক আইন, নীতি, প্রথা পরিবর্তন সাপেক্ষে সমতাভিত্তিক সমাজ ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সম্মিলিতভাবে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আন্দোলন গড়ে তোলা সম্ভব। নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা রোধে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পোস্টার, ই-পেপার, স্কুল, কলেজে, প্রশাসন ও গণমাধ্যমে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করেছে। সেই সাথে গণমাধ্যম কর্মিদের নিকট আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস—২০২২ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহনের অনুরোধ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা শাখার সহসভাপতি রওশন আক্তার মিন্টু, করুনা নাসরিনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও গণমাধ্যম কর্মীরা।

এই রকম আরও টপিক

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পাবনা মহিলা পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত সময় ০৩:১০:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস—২০২২ কে কেন্দ্র করে “নারী ও কন্যা নির্যাতন বন্ধ করি, নতুন সমাজ নির্মাণ করি”, এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা শাখার লিগ্যাল এইড উপ—পরিষদের উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) ২০২২ খ্রি. বিকেলে শহরের পাওয়ার হাউজপাড়া বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনটির জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামরুন নাহার জলি। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৭০ খ্রি. ৪ এপ্রিল বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর দীর্ঘ ৫২ বছর যাবৎ সংগঠনটি নারীর অধিকার আদায়ের জন্য বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি জেলায় প্রত্যন্ত অঞ্চলে নারীর সম অধিকার ও মর্যাদার বিষয়টিকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে সংগঠনটি কার্যক্রম লক্ষণীয়। গড়ে উঠেছে নারী ও কন্যা শিশু নির্যাতন প্রতিরোধের সামাজিক আন্দোলন। আমরা লক্ষ্য করছি নারীর অবস্থানের ইতিবাচক পরিবর্তনের পাশাপাশি সমাজের ভেতরে মূল্যবোধের অবক্ষয় হচ্ছে; নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা বিশেষ করে, ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যা করার মতো ঘটনা অব্যাহতভাবে ঘটে চলেছে যা উদ্বেগ সৃষ্টি করছে। পাশাপাশি একটি ধর্মীয় উগ্রবাদী স¤প্রদায় নানা অপতৎপরতা চালিয়ে সমাজকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। ফলে সমাজের মধ্যে সাধারন মানুষ, সংখ্যালঘু স¤প্রদায় ও নারী নিরাপত্তাহীন এবং প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। যা নারী আন্দোলনকে উদ্বিগ্ন করে তুলছে।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ ধরণের পরিস্থিতিতে মনে করে গণসচেতনতা বৃদ্ধি এবং মনস্তাত্বিক পরিবর্তন ও বৈষম্যমূলক আইন, নীতি, প্রথা পরিবর্তন সাপেক্ষে সমতাভিত্তিক সমাজ ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সম্মিলিতভাবে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আন্দোলন গড়ে তোলা সম্ভব। নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা রোধে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পোস্টার, ই-পেপার, স্কুল, কলেজে, প্রশাসন ও গণমাধ্যমে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করেছে। সেই সাথে গণমাধ্যম কর্মিদের নিকট আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস—২০২২ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহনের অনুরোধ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পাবনা জেলা শাখার সহসভাপতি রওশন আক্তার মিন্টু, করুনা নাসরিনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও গণমাধ্যম কর্মীরা।