ঈশ্বরদীতে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার ওপর কুচক্রীমহলের হামলা-মামলা ও লাঞ্ছনার অভিযোগ

স্টাফ রিপটারঃ বিজয়ের মাসে ঈশ্বরদীতে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার ওপর একটি কুচক্রীমহলের হামলা-মামলা ও লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটেছে। উপরন্তু উল্টো ওই মুক্তিযোদ্ধার নামে ঈশ্বরদী থানায় মারধর করার মিথ্যা মামলাও রুজু করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে শহরের থানাপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার শিকার বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম ফজলুর রহমান ফান্টু। তিনি একটি স্থানীয় সাপ্তাহিক সংবাদপত্র ‘চেতনায় ঈশ্বরদী’র ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক।

আর তুচ্ছ ঘটনায় হামলা চালায় তারই প্রতিবেশি আলতাফ হোসেন ও তার পুত্র রিপন।

বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয় এবং এনিয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ঈশ্বরদী উপজেলা কমান্ড স্টেশন রোডস্থ কার্যালয়ে শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে দশটায় এক প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডল।

আলোচনায় অংশ নেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মতিউর রহমান, নজরুল ইসলাম মিন্টু, এটিএম শামসুজ্জামান নাসিম, আকরাম হোসেন খান, রফিকুল ইসলাম রফিক, সিরাজ উদ্দীন বিশ্বাস, আঃ রাজ্জাক, আবু তাহের বকুল, খায়রুল ইসলাম, গোলাম মাহমুদ বুলবুল, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ঈশ্বরদী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন, আবু তালহা, প্রিন্স, সাপ্তাহিক ঈশ্বরদীর সম্পাদক ও দৈনিক সমকালের ঈশ্বরদী প্রতিনিধি সেলিম সরদার, আজকের পত্রিকার প্রতিনিধি খন্দকার মাহবুবুল হক দুদু প্রমুখ।

সভায় প্রায় দু’ঘন্টাব্যাপী আলোচনায় বক্তারা দোষীদের এহেন ন্যাক্কারজনক ঘটনার কঠোর প্রতিবাদ জানানো হয় ও দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার দাবি করা হয়।

প্রতিবাদকারী মুক্তিযোদ্ধারা বেলা ১২টার দিকে ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া আসনের মাননীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুজ্জামান বিশ্বাসের কলেজ রোডস্থ বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

আরও পড়ুনঃ ঈশ্বরদীর রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভৌত সুরক্ষা ব্যবস্থা কাজের উদ্বোধন

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন