ঢাকা ০৭:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

ঈশ্বরদীতে ৭৩৫ বোতল ফেন্সিডিল ও ১টি মাইক্রোবাসসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ০৩:০৭:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • / 10

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ০৯.৩০ ঘটিকায় ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার মোঃ আমিনুল কবীর তরফদার এর নেতৃত্তে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-১২, সিপিসি-২, পাবনা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, পাবনা জেলায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মাদক পরিবহন করছে। উক্ত সংবাদের সত্যতা যাচাই ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে অত্র কোম্পানীর একটি আভিযানিক দল ১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ০৯.৩০ ঘটিকায় ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার মোঃ আমিনুল কবীর তরফদার এর নেতৃত্তে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানাধীন শাহাপুর গ্রামে ইস্কুল পাড়াস্থ রাস্তার উপর চেকপোষ্ট স্থাপন করে।

ঢাকা মেট্রো- চ -১১-৯০৫০ নাম্বারের একটি টাটা মাইক্রোবাস এর গতি রোধ করলে আসামীরা মাইক্রোবাস থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু র‌্যাবের চৌকশ আভিযানিক দল আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলো, ১) কুমিল্লা জেলার দৌলতপুর থানার ধর্মদাহ গ্রামের মৃত আযাহার মোল্লার ছেলে মোঃ একরামুল(২৫), ২) মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার
বাওলাকান্দি ডাকঘরস্থ আড়ায়ানী গ্রামের মৃত জজ মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলী (৪০), ৩) পাবনা জেলার পাবনা সদর থানার তিনগাছা গ্রামের মক্কেল প্রামানিকের ছেলে মোঃ সাগর ভাষা (২৯) এবং ৪) কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার ঘোড়াশাল গ্রামের মোঃ রিপন মোল্লার ছেলে মোঃ ইয়াছিন মোল্লা (১৮)।

পরবর্তীতে তাদের দেহ তল্লাশি করিয়া ও মাইক্রোবাসের ভিতরে বস্তাযোগে রাখা এবং অভিনব কায়দায় মাইক্রোবাসের পিছনে গ্যাস সিলিন্ডারের খালি বোতলের ভিতরে রাখা অবস্থায় মোট ৭৩৫ (সাতশত পঁয়ত্রিশ) বোতল অবৈধ নেশাজাতীয় মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল নিজের হেফাজতে রাখিয়া পাবনা জেলাসহ দেশের অন্যান্য জেলায় ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল।

উক্ত আসামীগন দেশের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিভিন্ন সময়ে কুষ্টিয়া জেলা হতে ফেন্সিডিল সংগ্রহ করে পাবনা জেলাসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা শহরে পরিবহনের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল বলে স্বীকার করে ।

এ সংক্রান্তে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানায় এজাহার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ঈশ্বরদীতে ৭৩৫ বোতল ফেন্সিডিল ও ১টি মাইক্রোবাসসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

প্রকাশিত সময় ০৩:০৭:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ০৯.৩০ ঘটিকায় ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার মোঃ আমিনুল কবীর তরফদার এর নেতৃত্তে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-১২, সিপিসি-২, পাবনা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, পাবনা জেলায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মাদক পরিবহন করছে। উক্ত সংবাদের সত্যতা যাচাই ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে অত্র কোম্পানীর একটি আভিযানিক দল ১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ০৯.৩০ ঘটিকায় ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার মোঃ আমিনুল কবীর তরফদার এর নেতৃত্তে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানাধীন শাহাপুর গ্রামে ইস্কুল পাড়াস্থ রাস্তার উপর চেকপোষ্ট স্থাপন করে।

ঢাকা মেট্রো- চ -১১-৯০৫০ নাম্বারের একটি টাটা মাইক্রোবাস এর গতি রোধ করলে আসামীরা মাইক্রোবাস থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু র‌্যাবের চৌকশ আভিযানিক দল আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলো, ১) কুমিল্লা জেলার দৌলতপুর থানার ধর্মদাহ গ্রামের মৃত আযাহার মোল্লার ছেলে মোঃ একরামুল(২৫), ২) মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার
বাওলাকান্দি ডাকঘরস্থ আড়ায়ানী গ্রামের মৃত জজ মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলী (৪০), ৩) পাবনা জেলার পাবনা সদর থানার তিনগাছা গ্রামের মক্কেল প্রামানিকের ছেলে মোঃ সাগর ভাষা (২৯) এবং ৪) কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার ঘোড়াশাল গ্রামের মোঃ রিপন মোল্লার ছেলে মোঃ ইয়াছিন মোল্লা (১৮)।

পরবর্তীতে তাদের দেহ তল্লাশি করিয়া ও মাইক্রোবাসের ভিতরে বস্তাযোগে রাখা এবং অভিনব কায়দায় মাইক্রোবাসের পিছনে গ্যাস সিলিন্ডারের খালি বোতলের ভিতরে রাখা অবস্থায় মোট ৭৩৫ (সাতশত পঁয়ত্রিশ) বোতল অবৈধ নেশাজাতীয় মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল নিজের হেফাজতে রাখিয়া পাবনা জেলাসহ দেশের অন্যান্য জেলায় ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল।

উক্ত আসামীগন দেশের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিভিন্ন সময়ে কুষ্টিয়া জেলা হতে ফেন্সিডিল সংগ্রহ করে পাবনা জেলাসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা শহরে পরিবহনের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল বলে স্বীকার করে ।

এ সংক্রান্তে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানায় এজাহার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।