একটি “পাঁচ” শব্দ থেকে ফরিদপুরে আমরা করবো জয়ের উন্মুক্ত খাবার ঘর

ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ একদিন এক ছোট ভাইয়ের জন্য কেক কিনছিলেন “আমরা করবো জয়” এর সভাপতি আহমেদ সৌরভ। একজন লোক আসলেন। অন্যমনস্ক ছিলেন। বের হয়ে যাওয়ার আগে শুধু শুনেছিলেন “পাঁচ”। লোকটি বের হয়ে যাচ্ছেন, পিছু ডাকলেন আহমেদ সৌরভ । তিনি বুঝতে পেরেছিলেন লোকটির কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা নেই। তাই তিনি বললেন একটা সিংগারা খাবেন? আপনার যা খুশি নিন, লোকটি একপিচ সিংগারা নিয়ে চলে গেলেন। আহমেদ সৌরভের মনে দাগ কাটে এই ঘটনা।

তিনি ভাবতে শুরু করেন, এমন হাজারো মানুষ ৫ টাকার অভাবে অভুক্ত থাকে, এমন কত রিকশা চালকের পেটে ক্ষুধা থাকলেও পকেটে কিছু টাকা থাকলেও সে কিছু খাবে না, তার পরিবারের মুখে খাবার দিতে হবে ভেবে।

একটা দরিদ্র স্কুল পড়ুয়া শিশু চিপস খেতে চেয়েছিল, মা টাকা দেয়নি। সেই শিশুটির আর চিপস খাওয়া হয়নি।

এমন কিছু ভাবনা থেকে তৈরি করে ফেললেন “আমরা করবো জয় উন্মুক্ত খাবার ঘর” যেখান থেকে ক্ষুধার্ত মানুষগুলো সামান্য পরিমান হলেও খাবার নিতে পারবেন বিনামূল্যে, সামর্থ্যানুযায়ী অন্যরাও দিতেও পারবেন যেকোন শুষ্ক খাবার।

গত ০৫ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুর জেলা পুলিশের এডিশনাল এসপি জনাব মোঃ শহিদুল ইসলাম ফিতা কেটে এই উন্মুক্ত খাবার ঘরের যাত্রার শুভ সুচনা করেন। প্রথম খাবার ঘরটি স্থাপন করা হয়েছে ফরিদপুর শহরের সরকারি সারদা সুন্দরী মহিলা কলেজের সামনে।

“আমরা করবো জয়ের” সাধারণ সম্পাদক শরীফ খান বলেন, আমরা আস্তে আস্তে শহরের আরো কিছু জায়গায় এ খাবারঘর স্থাপন করব। আমাদের সংগঠন পক্ষ থেকে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপার জনাব মো.আলিমুজ্জামান এর প্রতি। উন্মুক্ত খাবার ঘরটি “আমরা করবো জয়” সংগঠনের সদস্যের অর্থ দ্বারা পরিচালিত হবে। তবে কেউ চাইলে আর্থিক সহযোগিতার মাধম্যে আরো কিছু উন্মুক্ত খাবার ঘর স্থাপনে সহায়তা করতে পারেন বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

“আমরা করবো জয়” জন্ম লগ্ন থেকেই হতদরিদ্র ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আসছে। তার পাশাপাশি শিশু শিক্ষা ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধেও তারা নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন