ঢাকা ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন —প্রতিমন্ত্রী পলক

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশিত সময় ০৬:২৪:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২
  • / 60

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক সিংড়া পল্লী বিদ্যুতের নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন। ছবি: স্বতঃকণ্ঠ


তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এড. জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পেঁৗছে দিয়েছেন। তিনি প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করেছেন। বিচ্ছিন্ন গ্রামকেও বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৯৬—২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ৩৯শ মেগাওয়াট থেকে বৃদ্ধি করে ৭,০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছিলেন। বিএনপি—জামায়াত জোট সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারেনি। কারণ তারা দূর্নীতিতে নিমজ্জিত ছিল। খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানকে ঘুষ না দিলে কোনো কাজ হত না। শনিবার দুপুর ১২টায় ১০ কোটি ৬৭ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর সিংড়া জোনাল অফিসের নব নির্মিত কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু সংবিধানে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দেয়ার কথা উল্লেখ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলাকে ডিজিটাল করতে মৌলিক বিষয়গুলো সংবিধানে এনেছিলেন। তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন তারই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৭৮ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ৩০ বছরে বিএনপি—জামায়াত, জাতীয় পার্টি যে কাজ করেছিল আমরা তার চেয়ে বেশি কাজ করেছি মাত্র ১৩ বছরে।

তিনি বলেন, বিদ্যুৎ একটা মৌলিক সেবা। যে সেবার উপর দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ ডিজিটালে রুপ নিয়েছে। ভাত রান্না করতে, অটোরিকশা, থ্রি—হুইলার চালাতে বিদ্যুতের ব্যবহার করা হচ্ছে। যার ফলে বাংলাদেশ আজ ডিজিটাল হয়েছে। গ্রামে গ্রামে বিদ্যুৎ যাওয়ার কারণে ছোট ছোট কারখানা তৈরি হয়েছে, ওয়ার্কসপ তৈরি হয়েছে। স্কুল—কলেজের শিক্ষার্থীরা বিদ্যুতের আলোয় পড়াশোনা করছে। মসজিদে এসি লাগানো হয়েছে, গ্রামে গ্রামে ইন্টারনেট সংযোগ গেছে বিদ্যুতের কারণে। যার ফলে ঘরে বসে তরুণ—তরুণীরা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে। চলনবিলের মানুষের জীবনযাত্রার মান বদলে দিয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।

সিংড়ায় ১ হাজার সড়কবাতি দিয়েছে নিরাপদ যাতায়াতের জন্য। সিংড়ার সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে আপনারা ৩ বার নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ার কারণে। বিএনপি—জামায়াতের সমালোচনা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি— জামায়াতের কি অধিকার আছে বিদ্যুৎ নিয়ে কথা বলার ? তেল—সার নিয়ে কথা বলার ? ২০০১ সালে বিএনপি—জামায়াত ক্ষমতায় আসার পরে বিদ্যুৎ, তেল—সারের জন্য আন্দোলন করতে হয়েছে। আজ আমরা বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত।

নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর সভাপতি গোলাম মওলার সভাপতিত্বে ও ডিজিএম মো. শাহাদৎ হোসেন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর জিএম প্রকৌশলী মো. এমদাদুল হক, সিংড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জান্নাতুল ফেরদৌস, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আল ইমরান, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড. ওহিদুর রহমান শেখ প্রমুখ।

জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন —প্রতিমন্ত্রী পলক

প্রকাশিত সময় ০৬:২৪:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২

তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এড. জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পেঁৗছে দিয়েছেন। তিনি প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করেছেন। বিচ্ছিন্ন গ্রামকেও বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৯৬—২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ৩৯শ মেগাওয়াট থেকে বৃদ্ধি করে ৭,০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছিলেন। বিএনপি—জামায়াত জোট সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারেনি। কারণ তারা দূর্নীতিতে নিমজ্জিত ছিল। খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানকে ঘুষ না দিলে কোনো কাজ হত না। শনিবার দুপুর ১২টায় ১০ কোটি ৬৭ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর সিংড়া জোনাল অফিসের নব নির্মিত কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু সংবিধানে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দেয়ার কথা উল্লেখ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলাকে ডিজিটাল করতে মৌলিক বিষয়গুলো সংবিধানে এনেছিলেন। তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন তারই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৭৮ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ৩০ বছরে বিএনপি—জামায়াত, জাতীয় পার্টি যে কাজ করেছিল আমরা তার চেয়ে বেশি কাজ করেছি মাত্র ১৩ বছরে।

তিনি বলেন, বিদ্যুৎ একটা মৌলিক সেবা। যে সেবার উপর দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ ডিজিটালে রুপ নিয়েছে। ভাত রান্না করতে, অটোরিকশা, থ্রি—হুইলার চালাতে বিদ্যুতের ব্যবহার করা হচ্ছে। যার ফলে বাংলাদেশ আজ ডিজিটাল হয়েছে। গ্রামে গ্রামে বিদ্যুৎ যাওয়ার কারণে ছোট ছোট কারখানা তৈরি হয়েছে, ওয়ার্কসপ তৈরি হয়েছে। স্কুল—কলেজের শিক্ষার্থীরা বিদ্যুতের আলোয় পড়াশোনা করছে। মসজিদে এসি লাগানো হয়েছে, গ্রামে গ্রামে ইন্টারনেট সংযোগ গেছে বিদ্যুতের কারণে। যার ফলে ঘরে বসে তরুণ—তরুণীরা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে। চলনবিলের মানুষের জীবনযাত্রার মান বদলে দিয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।

সিংড়ায় ১ হাজার সড়কবাতি দিয়েছে নিরাপদ যাতায়াতের জন্য। সিংড়ার সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে আপনারা ৩ বার নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ার কারণে। বিএনপি—জামায়াতের সমালোচনা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি— জামায়াতের কি অধিকার আছে বিদ্যুৎ নিয়ে কথা বলার ? তেল—সার নিয়ে কথা বলার ? ২০০১ সালে বিএনপি—জামায়াত ক্ষমতায় আসার পরে বিদ্যুৎ, তেল—সারের জন্য আন্দোলন করতে হয়েছে। আজ আমরা বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত।

নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর সভাপতি গোলাম মওলার সভাপতিত্বে ও ডিজিএম মো. শাহাদৎ হোসেন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি—১ এর জিএম প্রকৌশলী মো. এমদাদুল হক, সিংড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জান্নাতুল ফেরদৌস, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আল ইমরান, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড. ওহিদুর রহমান শেখ প্রমুখ।