ঢাকা ০৭:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

জরিমানা দিতে অস্বীকার; সিরাজগঞ্জে তমিজ উদ্দিন দইঘর সিলগালা

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ১২:১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ মার্চ ২০২০
  • / 6

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখবিহীন দই-মিষ্টি বিক্রি এবং আমদানি করা বিদেশি পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে ধার্য্য করা জরিমানা দিতে অস্বীকার করায় সিরাজগঞ্জে তমিজ উদ্দিন অ্যান্ড সন্স মিষ্টিমেলা ও দইঘর সিলগালা করে দিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (৩ মার্চ) দুপুরে শহরের প্রাণকেন্দ্র বাজার স্টেশন স্বাধীনতা স্কয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ঘটনার সময় কর্মকর্তাকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সৌরভ কুমার দত্ত জানান, দুপুরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান রনির নেতৃত্বে ‘তমিজ উদ্দিন অ্যান্ড সন্স মিষ্টিমেলা ও দইঘরে’ অভিযান চালানো হয়।

এ সময় উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখবিহীন দই ও মিষ্টি বিক্রি এবং বিদেশি পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানের মালিক সাইফুল ইসলাম ওই জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন এবং যা পারেন তা করেন বলে হুমকি দিতে থাকেন।

পরে জরিমানা আদায়ের জন্য ওই প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান রনি বলেন, ওই প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত দই ও মিষ্টির গায়ে উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখ, মূল্য, উপাদান ওজন কোনোকিছু লেখা নেই। এ সময় প্রাথমিকভাবে ভোক্তা অধিকার আইনে দোকান মালিককে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তখন প্রতিষ্ঠানের মালিক জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন।

আরও দেখা যায় ভারতীয় পণ্যগুলোতে আমদানিকারকের সিল ছাড়াই বিক্রি করছেন। পরে ভোক্তা অধিকার আইন-২০০৯ এর ৩৭ ও ৩৮ ধারায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কিন্তু তখনও তিনি জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন এবং তাৎক্ষণিক অন্যান্য মিষ্টির দোকানগুলোতে ফোন করে দোকান বন্ধ রাখতে বলেন। জরিমানা আদায়ের জন্য ওই দোকানটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, ঘটনার সময় ওই মিষ্টির দোকানের মালিক আমাকে দেখে নেবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন। এ ঘটনায় সদর থানায় সাধারণ ডায়রি করেছি।

জরিমানা দিতে অস্বীকার; সিরাজগঞ্জে তমিজ উদ্দিন দইঘর সিলগালা

প্রকাশিত সময় ১২:১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ মার্চ ২০২০

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখবিহীন দই-মিষ্টি বিক্রি এবং আমদানি করা বিদেশি পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে ধার্য্য করা জরিমানা দিতে অস্বীকার করায় সিরাজগঞ্জে তমিজ উদ্দিন অ্যান্ড সন্স মিষ্টিমেলা ও দইঘর সিলগালা করে দিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (৩ মার্চ) দুপুরে শহরের প্রাণকেন্দ্র বাজার স্টেশন স্বাধীনতা স্কয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ঘটনার সময় কর্মকর্তাকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সৌরভ কুমার দত্ত জানান, দুপুরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান রনির নেতৃত্বে ‘তমিজ উদ্দিন অ্যান্ড সন্স মিষ্টিমেলা ও দইঘরে’ অভিযান চালানো হয়।

এ সময় উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখবিহীন দই ও মিষ্টি বিক্রি এবং বিদেশি পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানের মালিক সাইফুল ইসলাম ওই জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন এবং যা পারেন তা করেন বলে হুমকি দিতে থাকেন।

পরে জরিমানা আদায়ের জন্য ওই প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান রনি বলেন, ওই প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত দই ও মিষ্টির গায়ে উৎপাদন ও মেয়াদের তারিখ, মূল্য, উপাদান ওজন কোনোকিছু লেখা নেই। এ সময় প্রাথমিকভাবে ভোক্তা অধিকার আইনে দোকান মালিককে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তখন প্রতিষ্ঠানের মালিক জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন।

আরও দেখা যায় ভারতীয় পণ্যগুলোতে আমদানিকারকের সিল ছাড়াই বিক্রি করছেন। পরে ভোক্তা অধিকার আইন-২০০৯ এর ৩৭ ও ৩৮ ধারায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কিন্তু তখনও তিনি জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন এবং তাৎক্ষণিক অন্যান্য মিষ্টির দোকানগুলোতে ফোন করে দোকান বন্ধ রাখতে বলেন। জরিমানা আদায়ের জন্য ওই দোকানটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, ঘটনার সময় ওই মিষ্টির দোকানের মালিক আমাকে দেখে নেবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন। এ ঘটনায় সদর থানায় সাধারণ ডায়রি করেছি।