ঢাকা ১০:০৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

তাড়াশে মরদেহ উদ্ধার

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ১২:২৮:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • / 12

সিরাজগঞ্জ (তাড়াশ ) সংবাদদাতাঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশে আনিছুর রহমান নামে এক দিনমজুর মারা গেলে মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

গত ৪ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যার দিকে উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের সাকোয়াদিঘী গ্রাম থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে তাড়াশ থানা পুলিশ।

মৃত আনিছুর রহমান পাবনা জেলার চাটমোহর উপজেলার বিরানগড় গ্রামের মহরম আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা বলেন, আনিসুর প্রতিবেশী এরশাদ আলীর বাড়িতে দিনমজুরি করতেন। ওই দিন সকালে কাজে না আসায় এরশাদ আলীর স্ত্রী আনু বেগম আনিছুরকে ডাকতে গিয়ে ঘরে মধ্যে তার মরদেহ দেখতে পান। এ সময় ঘরের দরজায় তার স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি বসে ছিলেন।

মৃত ব্যক্তির ভাই মুনজিল আলী বলেন, প্রায় ১২ বছর আগে সাকোয়াদিঘী গ্রামের আবু বক্করের মেয়ে আছিয়া বেগমকে বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িতেই বসবাস করছিলেন তার ভাই আনিছুর। স্ত্রীর নামে জমি লিখে দেয়ার বিষয় নিয়ে আনিছুরের সাথে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে তার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

তাড়াশ থানা অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছিল। পরে বুধবার ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।

তাড়াশে মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত সময় ১২:২৮:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

সিরাজগঞ্জ (তাড়াশ ) সংবাদদাতাঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশে আনিছুর রহমান নামে এক দিনমজুর মারা গেলে মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

গত ৪ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যার দিকে উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের সাকোয়াদিঘী গ্রাম থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে তাড়াশ থানা পুলিশ।

মৃত আনিছুর রহমান পাবনা জেলার চাটমোহর উপজেলার বিরানগড় গ্রামের মহরম আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা বলেন, আনিসুর প্রতিবেশী এরশাদ আলীর বাড়িতে দিনমজুরি করতেন। ওই দিন সকালে কাজে না আসায় এরশাদ আলীর স্ত্রী আনু বেগম আনিছুরকে ডাকতে গিয়ে ঘরে মধ্যে তার মরদেহ দেখতে পান। এ সময় ঘরের দরজায় তার স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি বসে ছিলেন।

মৃত ব্যক্তির ভাই মুনজিল আলী বলেন, প্রায় ১২ বছর আগে সাকোয়াদিঘী গ্রামের আবু বক্করের মেয়ে আছিয়া বেগমকে বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িতেই বসবাস করছিলেন তার ভাই আনিছুর। স্ত্রীর নামে জমি লিখে দেয়ার বিষয় নিয়ে আনিছুরের সাথে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে তার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

তাড়াশ থানা অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছিল। পরে বুধবার ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।