দিনাজপুরে বিজয়ী ইউপি সদস্যের ভাতিজাকে হত্যার অভিযোগ পরাজিত

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: নির্বাচনে হেরে বিজয়ী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যের ভাতিজা আলী হোসেন সৌরভকে (২২) ঘাড় মটকানোসহ পায়ের রগ কেটে হত্যার অভিযোগে পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী হেলাল উদ্দিনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

ঘটনাটি গতকাল বুধবার দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার জয়পুর ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং চামুন্ডা ওয়ার্ডে ঘটেছে। সকালে ওই গ্রামের নলশিষা

নদীর পড়া থেকে দুই পায়ের রগ কাটা ও ঘাড় মটকানো অবস্থায় আলী হোসেন সৌরভের মরহেদ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত আলী হোসেন সৌরভ ওই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে এবং নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য সানোয়ার হোসেনের ভাতিজা।

সৌরভ পেশায় একজন ব্যবসায়ী। আটক ইউপি সদস্য প্রার্থী হেলাল উদ্দিন একই গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।

সৌরভের বাবা আনোয়ার হোসেন বলেন, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না সৌরভকে। অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও তাকে পাওয়া যায় না। পরে গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৭ টায় এলাকাবাসী খবর দেয় সৌরভের মরদেহ বাড়ির পাশে নদীর ধারে পড়ে আছে।

পরে থানা পুলিশকে এলাকাবাসী খবর দিলে তারা মরদেহটি উদ্ধার করে। এ বিষয়ে ওই ইউপি সদস্য প্রার্থীসহ তার লোকজনের
বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধিন আছে।

সৌরভের বড় চাচা আব্দুল মজিদ বলেন, ইউপি নির্বাচন তফসিল ঘোষণার পর থেকে বিভিন্ন কায়দার আমার ভাই সানোয়ার হোসেনের ক্ষতিসাধনের চেষ্টা করে আসছিল হেলাল উদ্দিন।

এছাড়াও হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। গত রবিবার (২৮ নভেম্বর) নির্বাচনে সানোয়ার হোসেনের কাছে হেরে যায় সে। সেই পরাজয়কে মেনে নিতে না পারায় সে আমাদের ভাতিজা সৌরভকে দুই পায়ের রগ কেটে ঘাড় মটকিয়ে হত্যা করেছে।

এলাকাবাসীরা জানান, নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই নবনির্বাচিত সানোয়ার হোসের সাথে দ্ব›দ্ব চলছিল পরাজিত হেলাল উদ্দিনের। সকলে ধারণা করছে
সেই দ্ব›দ্বকে কেন্দ্র করেই সৌরভকে হত্যা করা হয়েছে। নবনির্বাচিত জয়পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওবাইদুর রহমান ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।

এবিষয়ে নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদের অফিসিয়াল মুঠোফোন যোগাযোগ করলে, তিনি ফোনকলটি রিসিভ করে সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই ফোনটি কেটে দেন।

পরে একাধিকবার ফোন করা হলে তিনি ফোনকল গ্রহণ করেন’নি। উল্লেখ্য, গত রবিবার (২৮ নভেম্বর) দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় তৃতীয়
ধাপে অনুষ্ঠিত হয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।

আরও পড়ুনঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে ৫ কোটি ৬০ লক্ষ টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন