নওগাঁয় ছেলে সন্তান না হওয়াই ৫ কন্যা সন্তান ও স্ত্রীকে রেখে নতুন বউকে নিয়ে স্বামী উধাও

সুব্রত কিশোর হালদার, নওগাঁঃ ছেলে সন্তানের আশায়-আশায় পর পর ৫ কন্যা সন্তান হওয়ায় স্ত্রীকে অন্যায় ভাবে ভৎসনা দিয়ে স্বামী নতুন এক নারীকে নিয়ে নিরুদ্দেশ।

এদিকে ৫ কন্যা সন্তান নিয়ে চরম উৎকন্ঠায় পড়েছেন স্ত্রী। অভাবের সংসারে মানবেতর দিন কাটছে তাদের। এমন অমানবিক ঘটনা ঘটেছে নওগাঁ সদর উপজেলার শিমুলিয়া বলির ঘাট দক্ষিন পাড়ায়। এ বিষয়ে ওই গৃহবধূ তার স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগী গ্রহবধূ রিভা বেগম জানান, বলির ঘাট দক্ষিন পাড়ার বাসিন্দা হেলাল উদ্দিনের সাথে প্রায় এক যুগ আগে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর ছেলে সন্তানের আশায় স্বামীর ইচ্ছায় পর পর ৫ বার গর্ভে সন্তান ধারন করেন তিনি। সন্তানগুলোর মধ্যে বড় মেয়র বয়স প্রায় ১১ বছর। ছোট মেয়ের বয়স ২ বছর। পর পর মেয়ে সন্তান হওয়ায় হেলাল স্ত্রী রিভা’কে এ্যড়িয়ে চলতে থাকে। সংসারের খরচ চালাতে তালবাহানা শুরু করে। মাঝে মধ্যেই অন্য মেয়েকে বিয়ে করবে নতুন সংসার গড়ার হুমকি দিতো।

সম্প্রতি সংসারের খরচ বা ভরন পোষন দেওয়া বন্ধ করে দেয়। এমনকি স্ত্রী সন্তানদের খোঁজ খবর নেয়া বন্ধ করে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় হেলাল। এমন পরিস্থিতে সংসার চালানোর স্বার্থে অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ নেয় রিভা। খেয়ে না খেয়ে চলছে তাদের সংসার।

তিনি অভিযোগ করে আরো জানান, পর পর ৫ টি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ায় স্বামী হেলাল রিভাকে অন্যায় ভাবে ভৎসনা দেয়। একইসাথে রিভার অনুমতি ছাড়াই গোপনে অন্য আরেকটি মেয়েকে বিয়ে করে উধাও হয় হেলাল। মাস ছয়েক ধরে কোন প্রকার যোগাযোগ কিম্বা সাংসারিক খরচ বা ভরন পোষন না দিয়েই আত্নগোপনে আছে হেলাল। এমন পরিস্থিতিতে গৃহবধূ স্থানীয় মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে আইন সহায়তা কেন্দ্রের পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, রিভা স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করার পর দুই পক্ষকে ডেকে বৈঠকের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু বিবাদী হেলাল আপোষ বৈঠকে উপস্থিত না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ গঠন করে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, অন্যায় ভাবে ভৎসনা দিয়ে স্ত্রীকে সমাজে হেয় করেছেন অভিযুক্ত হেলাল। এছাড়া স্ত্রী-সন্তানের ভরন পোষন না দিয়ে ও একইসাথে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই অন্য কারো সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ায় প্রচলিত আইন ভঙ্গ করেছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন