নিউইয়র্কের বিখ্যাত টাইমস স্কোয়ার বিলবোর্ডে প্রদর্শিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর ছবি

স্বতঃকন্ঠ বার্তাকক্ষঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্ম মধ্যরাত থেকে শুরু করে আজ রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা নিউ ইয়র্কের বিখ্যাত টাইমস স্কোয়ার বিলবোর্ডে প্রদর্শিত হবে।

বাংলাদেশের জাতীয় শোক দিবসে আজ প্রতি দুই মিনিটে ১৫ সেকেন্ডের জন্য নিউইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারে আইকনিক “বল ড্রপ” বিলবোর্ডে প্রদর্শনীটি চলবে।

বাংলাদেশের জাতীয় শোক দিবসে আজ প্রতি দুই মিনিট পর পর ১৫ সেকেন্ডের জন্য টাইমস স্কোয়ারে আইকনিক “বল ড্রপ” বিলবোর্ডে প্রদর্শনীটি চলবে।

অডিওভিজুয়ালটি টাইমস স্কোয়ারে মোট ৭২০ বার প্রদর্শিত হবে, যা প্রতিদিন ৪০০,০০০ এরও বেশি পর্যটককে আকর্ষণ করে।

এই উদ্যোগের নেতৃত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশী-আমেরিকান উদ্যোক্তা এবং প্রচার সংস্থা এনওয়াই ড্রিমস প্রোডাকশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহিম ফিরোজ এবং বাংলাদেশী কোম্পানি বিডি ফাইন্যান্স, আনোয়ার গ্রুপ, এক্সিম ব্যাংক এবং আরও কিছু ব্যক্তি সমর্থিত।

অডিওভিজুয়াল ক্লিপটিতে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা পিতার বিভিন্ন স্মরণীয় মুহূর্ত রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে তার ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ, যা ইউনেস্কোর মেমরি অফ দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার দ্বারা তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল।

“আমরা — সকল বাংলা বা বাংলাদেশী — আমাদের জাতির জনক হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতো একজন আইকনিক ব্যক্তিত্বকে পেয়ে গর্ববোধ করি। সম্প্রতি একটি টক শোতে ফিরোজ বলেন, অডিও-ভিজ্যুয়ালটি কল্পনা করুন — বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের অগ্নিগর্ভ ভাষণ দিচ্ছেন যখন তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার আহ্বান জানান।

ফিরোজ বলেছিলেন যে তিনি নিজের তহবিল নিয়ে উদ্যোগ নিয়েছিলেন তবে পরে স্পনসররা এগিয়ে এসেছিলেন।

গত সপ্তাহে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, “আমরা দীর্ঘদিন ধরে ঐতিহাসিক টাইমস স্কয়ার এবং এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ে এক্সপোজার পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলাম … এখন আমরা সুযোগ পেয়েছি।”

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্ক্রিনিং এবং টাইমস স্কোয়ারে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি বাংলাদেশকে তার বৈশ্বিক ব্র্যান্ডিং উজ্জ্বল করতে সহায়তা করবে।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহীদুল ইসলাম বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশীদের কাছে, বিশেষ করে দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের বাংলাদেশী-আমেরিকানদের কাছে বঙ্গবন্ধুকে জীবন ও আদর্শ তুলে ধরার ক্ষেত্রে এই ধরনের ঘটনা অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করবে।

এদিকে, বিদেশে বাংলাদেশ মিশনজাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে।

আঙ্কারা সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতায় আঙ্কারায় বাংলাদেশ দূতাবাস ১২ আগস্ট থেকে আঙ্কারার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে চার দিনের একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে।

এতে বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য রাজনৈতিক সংগ্রাম, বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ও সামাজিক দিকগুলো রয়েছে।

তুরস্কে নিযুক্ত মোসুদ মান্নান বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বলেন, প্রদর্শনীর ছবিগুলো জাতির পিতার আজীবন কর্মকাণ্ডের প্রতিফলন ঘটায়।

তিনি বলেন, এই প্রদর্শনী তুরস্কের তরুণদের বঙ্গবন্ধুকে আদর্শ বুঝতে অনুপ্রাণিত করবে, যিনি কেবল বাংলাদেশীদের নেতাই ছিলেন না, বিশ্বের নিপীড়িত জনগণেরও ছিলেন।

আরও পড়ুনঃ আগষ্টের দুঃসহ স্মৃতি আজও তাড়িয়ে বেড়ায়

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন