পাঞ্জশির প্রদেশ সম্পূর্ণরূপে নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে তালেবান

স্বতঃকণ্ঠ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল সহ সব গুলো প্রদেশ নিয়ন্ত্রণে নিলেও একমাত্র পাঞ্জশির প্রদেশ তালেবানের নিয়ন্ত্রনে ছিল না।

সাবেক সভিয়েত ইউনিয়ন, এমনকি ১৯৯৬ সালে তালেবান ক্ষমতায় থাকা কালেও পাঞ্জশির জয় করতে পারেনি তালেবান। কিন্তু সেই পাঞ্জশির প্রদেশও এখন তালেবানের নিয়ন্ত্রণে।

সোমবার ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টার দিকে তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, সর্বশক্তিমান আল্লাহ ও আমাদের জনগণের সমর্থনে দেশের পূর্ণ নিরাপত্তার জন্য সর্বশেষ প্রচেষ্টাগুলিও ফল দিয়েছে এবং পাঞ্জশির প্রদেশ পুরোপুরি ইসলামিক আমিরাতের নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

আর এই প্রদেশের কিছু মন্দ ডাকাত ও বিদ্রোহীকে পিষে দেয়া হয়েছে এবং বাকিরা পালিয়ে গেছে এবং পাঞ্জশিরের নিপীড়িত ও মর্যাদাবান লোকদেরকে মন্দ থেকে মুক্ত করা হয়েছে।

আমরা পাঞ্জশিরের লোকদের আশ্বস্ত করছি যে, তাদের সাথে কোনোভাবেই অসদ আচরণ করা হবে না, তারা সবাই আমাদের ভাই, আমরা একটি দেশ ও এক লক্ষ্যের জন্য এক সাথে কাজ করব।

এই বিজয়ের মাধ্যমে, দেশের বাকী অংশ সম্পূর্ণরূপে যুদ্ধ থেকে বের হয়ে যাবে এবং আমাদের দেশ স্বাধীনতা এবং সমৃদ্ধির পরিবেশে শান্তিপূর্ণ ও সমৃদ্ধ জীবন জীবনের দিকে এগিয়ে যাবে।

এর আগে গতকাল পাঞ্জশির নেতা আহমেদ মাসুদ তার ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাসে যুদ্ধ বন্ধ করতে বলেন এবং মাওলানাদের নির্দেশক্রমে শান্তি আলোচনার আহবান জানান।

উল্লেক্ষ্য, গত ১৫ আগস্ট কাবুলে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আফগানিস্তান নিয়ন্ত্রণে নেয় তালেবান। এবং তারা একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনের আভাস দেয়।

সূত্রঃ টুইটার

আরও পড়ুনঃ কাবুলে তালেবানের সাথে প্রথম বিদেশী দেশ হিসেবে চীনা রাষ্ট্রদূতের কূটনীতিক বৈঠক

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন