পাবনার সাঁথিয়ায় র্স্মাট ফোন দেখতে না দেয়ায় ভাই ও বোনকে কুপিয়ে আহত

সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি: পাবনার সাঁথিয়ায় র্স্মাট মোবাইল ফোন দেখতে না দেয়ায় ভাই ও বোনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে সৈকত(২০) নামে এক যুবক। নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে সাঁথিয়ার গাঙ্গহাটি গ্রামে সোমবার (০৯ আগষ্ট) রাতে।

পারিবারিক সূত্রে জানাযায়, গতকাল সোমবার রাত পৌনে ৯ টার দিকে সাঁথিয়া উপজেলার আর-আতাইকুলা ইউনিয়নের গাঙ্গহাটি গ্রামের খন্দকার ইব্রাহিম হোসেনের ছেলে সৈকত(২০), সৌরভ(১৮) ও মেয়ে ইভা(২২) তাদের ঘরে মোবাইল ফোন দেখতে থাকে।

এসময় বাবা খন্দকার ইব্রাহিম তাদের মোবাইল দেখতে নিষেধ করায় পিতার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সৈকত। মেয়ে ইভা ও ছোট ভাই সৌরভ সৈকতের কথার প্রতিবাদ করে। ক্ষিপ্ত হয়ে সৈকত ঘরের ধরজা বন্ধ করে ধারালো হাসুয়া দিয়ে সৌরভ ও ইভাকে শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে আহত করে।

আহতদেরকে মূমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থা অবন্নতি ঘটলে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

সেখানেও শারীরিক অবস্থা আরো আশংকা জনক দেখা দিলে সৌরভ ও ইভাকে চিকিৎসক ঢাকা হাসপাতালে রির্ফাড করেন। খবর পেয়ে আতাইকুলা থানা পুলিশ সোমবার রাতেই দূর্ধর্ষ সৈকতকে বাড়ি থেকে আটক করে। জব্দ করে ধারালো হাসুয়া।

এ ব্যাপারে আতাইকুলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন সৈকত থানা হেফাজতে রয়েছে। সৈকতের পিতা খন্দকার ইব্রাহিম আজকের প্রত্রিকাকে জানান, তার ছেলে সৈকত কিছুদিন ধরে মানষিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় ভুগছে।

আরও পড়ুনঃ পাবনার সাঁথিয়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন