পাবনায় দ্বিতীয় পদ্মা সেতুতে সংযুক্তির দাবিতে ঐতিহাসিক মানবন্ধন

পাবনায় দ্বিতীয় পদ্মা সেতুতে সংযুক্তির দাবিতে হাতে হাত রেখে ইতিহাসে সবচেয়ে বড় মানবন্ধন করল পাবনাবাসী।

গতকাল মানবন্ধনটি ছিল সর্বকালের সবচেয়ে বড়। একটি সেতুর দাবিতে বৃহৎ এমন মানবন্ধন ইতিহাসে নজির বিহীন। পাবনা বাসির প্রাণের দাবি দ্বিতীয় পদ্মা সেতুতে পাবনা সংযুক্ত করণ। আরিচা- কাজিরহাট- দৌলতদিয়া সংযোগকারী ওয়াই টাইপ ২য় পদ্মা সেতুর দাবিতে ১৪০ কিলোমিটার মানববন্ধণ কর্মসুচি পালন করা হয়েছে। গতকাল সকাল ১১ টায় ঈশ্বরদী রেলষ্টেশন থেকে এ কর্মসুচি শুরু হয়ে দাশুরিয়া,পাবনাশহর,আতাইকুলা,চিনাখড়া, চব্বিশমাইল,দুলাই,আমিনপুর,কাশিনাথপুর, কাজিরহাট, টেবুনিয়া থেকে বাঘাবড়ী পর্যন্ত ১৪০ কিলোমিটার মানববন্ধণ বেলা ১২ টায় শেষ হয়। পাবনা উন্নয়ন ফোরামের আয়োজনে এ মানববন্ধণ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল থেকেই মানববন্ধণ পয়েন্টে শতশত লোক আসতে শুরু করে।

বেলা ১১ টার সময়ে স্বতস্ফুর্ত মানববন্ধণ যেন লোকারণ্যে পরিনত হয়। সাধারণ মানুষ তাদের সব কাজ ফেলে দীর্ঘকালের প্রাণের দাবি যমুনা সেতু বাস্তবায়ণ আন্দোলনে অংশ নেন । পাবনা প্রেসক্লাব সড়কে সকাল ১১ টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা, সেক্টর কমান্ডার ফোরাম সদস্যরা জাতীয় পতাকা হাতে ব্রিজের দাবিতে মানববন্ধণ করেন। এ মানববন্ধণে সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজ , পাবনা ইয়াং জার্নালিস্ট ফোরাম , সেন্ট্রাল গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষার্থী ,সাংস্কৃতিক কর্মী, সংবাদকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন। পাবনা ইয়াং জার্নালিস্ট ফোরামের ব্যানারে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মির্জা শহীদুল ইসলাম, পাবনার সিনিয়র সাংবাদিক আক্তারুজ্জামান আক্তার, সৈকত আফরোজ আসাদ, কামাল সিদ্দিকী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের পক্ষে আবুল কাশেম, জেলা মহিলা যুবলীগ নেত্রী কহিনুর ফেরদৌস কনা, স্বেচ্ছা সেবকলীগ নেতা মুস্তাফিজুর রহমান সুইট, পাবনা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন বাচ্চু, জেলা যুবলীগ নেতা তৌহিদুল হাসান রুপম, এ যুগের দ্বীপের বার্তা সম্পাদক নবী নেওয়াজ।

আরো বক্তব্য রাখেন এডভোকেট ফরিদা ইয়াসমিন রুমি।আরো বক্তব্য রাখেন এডভোকেট ফরিদা ইয়াসমিন রুমি।পাবনা উন্নয়ন ফোরাম সভাপতি এস এম হাবিবুল্লাহ দীর্ঘ ১৪০ কিলোমিটার মানবন্ধণ সফল করায় পাবনাবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে কাজীরহাট ২য় যমুনা সেতুর দাবি পুরণে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকার আহŸান জানান । পাবনা উন্নয়ন ফোরাম সভাপতি এসকে হাবিবুল্লাহ দাবি করেছেন কাজিরহাট ওয়াই টাইপ ২য় যমুনা সেতু নির্মাণ করা হলে ঢাকার সাথে পাবনার যোগাযোগের দুরুত্ব ৮০ কিলোমিটার কমবে । এর পাশাপাশি পাবনায় ব্যাপক শিল্পায়ন, কর্মসংস্থান ও কৃষকরা সহজেই উৎপাদিত পণ্য রাজধানীতে বিক্রি করতে পারবে। পাবনা আওয়ামীলগ কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন এই স্বপ্ন যদি বাস্তবায়ন হয় তাহলে পাবনার মানুষের আরও ব্যাপক উন্নয়ন হবে। পাবনা সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার রেখা বলেন এই সেতু পাবনা বাসির প্রাণের দাবি। দেশে যে উন্নয়ন হচ্ছে তাতে দ্বিতীয় পদ্মা সেতু নির্মাণের দাবি জানায় এবং সেখানে যেন পাবনাকে অবশ্যই সংযুক্ত করা হয়।

পাবনা উন্নয়ন ফোরামের আয়োজনে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন পাবনা ইয়াং জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি তারেক খান, সাধারণ সম্পাদক রনি ইমরান, সহ সভাপতি এস. পারভেজ, অর্থ সম্পাদক সেলিম মোরর্শেদ রানা, প্রচার সম্পাদক রবিউল ইসলাম রনি, কার্যনির্বাহী সদস্য রেজা নাবিল প্রমুখ।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন