ঢাকা ০২:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে -জেলা প্রশাসক

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ০৯:৩৩:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
  • / 11

পাবনা সংবাদদাতা : পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জেলা প্রশাসক।

পাবনা জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন বলেন, পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ধরনের বিয়ের সাথে যেই জড়িত থাক না কেন কেহই রেহাই পাবে না।

বাল্য বিবাহের সাথে জড়িত অভিভাবক, কাজী, মোল্লা, পুরোহীত, এলাকার মেম্বর, চেয়ারম্যান এবং রাজনৈকি ব্যক্তি যেই হোক তার বিরুদ্ধেই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি কাজীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কারো ভয়ে আপনারা বাল্য বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করবেন না।

আপনাদের এ ব্যাপারে কেউ ভয় ভীতি দেখালে সরাসরি আমাকে জানাবেন। সে যেই হোক আমি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। বাল্য বিবাহ রোধে মুসলিম ও হিন্দু বিবাহ রেজিস্টারগণের করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

গতকাল পাবনার পিসিসিএস চাইনিজ রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রোর সমিতি ও হিন্দু বিবাহ রেজিস্ট্রার সমিতি পাবনা জেলা শাখা এই সভার আয়োজন করে।

জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সভাপতি কাজী মো: শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন পাবনা জেলা রেজিষ্ট্রার মনিন্দ্র নাথ বর্মন ও সদর সাব রেজিস্ট্রার ইব্রাহিম আলী।

সভা সঞ্চালনা করেন জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: হাসিবুর রহমান রুমী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সহ সভাপতি কাজী ইসমাইল হোসেন কিরন।

সময় আরো বক্তব্য রাখেন, কাজী শাহীন আলম, কাজী আব্দুস সবুর, কাজী নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।

পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে -জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত সময় ০৯:৩৩:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পাবনা সংবাদদাতা : পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জেলা প্রশাসক।

পাবনা জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন বলেন, পাবনায় বাল্য বিবাহ হলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ধরনের বিয়ের সাথে যেই জড়িত থাক না কেন কেহই রেহাই পাবে না।

বাল্য বিবাহের সাথে জড়িত অভিভাবক, কাজী, মোল্লা, পুরোহীত, এলাকার মেম্বর, চেয়ারম্যান এবং রাজনৈকি ব্যক্তি যেই হোক তার বিরুদ্ধেই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি কাজীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কারো ভয়ে আপনারা বাল্য বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করবেন না।

আপনাদের এ ব্যাপারে কেউ ভয় ভীতি দেখালে সরাসরি আমাকে জানাবেন। সে যেই হোক আমি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। বাল্য বিবাহ রোধে মুসলিম ও হিন্দু বিবাহ রেজিস্টারগণের করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

গতকাল পাবনার পিসিসিএস চাইনিজ রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রোর সমিতি ও হিন্দু বিবাহ রেজিস্ট্রার সমিতি পাবনা জেলা শাখা এই সভার আয়োজন করে।

জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সভাপতি কাজী মো: শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন পাবনা জেলা রেজিষ্ট্রার মনিন্দ্র নাথ বর্মন ও সদর সাব রেজিস্ট্রার ইব্রাহিম আলী।

সভা সঞ্চালনা করেন জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: হাসিবুর রহমান রুমী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মুসলিম নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সহ সভাপতি কাজী ইসমাইল হোসেন কিরন।

সময় আরো বক্তব্য রাখেন, কাজী শাহীন আলম, কাজী আব্দুস সবুর, কাজী নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।