পাবনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

সোহেল রানা, পাবনাঃ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি বাংলাদেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন উপলক্ষে পাবনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে গতকাল পাবনার জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সকাল দশটায় জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন সহ আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠিত হয়।

পাবনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রোকেয়া বেগমের সভাপতিত্বে যুগ্মসাধারণ সম্পাদক নিহার আফরোজ জলির পরিচালনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে ভিডিও কলের মাধ্যমে উপস্থিত সবার মাঝে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পাবনা-সিরাজগঞ্জ আসনের সংসদীয় সদস্য ও পাবনা জেলা মহিলা আ.লীগের সভাপতি নাদিরা ইয়াসমিন জলি।

উপস্থিত থেকে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদা শবনম সদর থানা মহিলা আমি লীগের সভাপতি রাশিদা বেগম পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লায়লা স্বামী আারা শিখা।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর লাইলী বেগম, হাসিনা খাতুন সীমা তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক স্নিগ্ধা স্বামীনী, কৃষি সম্পাদক হাসি ইসলাম শিক্ষা সম্পাদক ফিরোজা খাতুন, ত্রান ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক শামীম আরা লাকি, জেলা কমিটির সদস্য জিন্নাতুন নাহার কেয়া, শাবানা পারভীন শিমুল, সদর থানা মহিলা আমি লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা খাতুন ইনসান, দপ্তর সম্পাদক মূর্শিদা খাতুন শহীদ সাধন বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মনিরা পারভীন, বেড়া উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সুষমা রানী সুজানগর মহিলা আওয়ামী লীগের নিরা খন্দকার, এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন থানা মহিলা আওয়ামী লীগের হেলেনা, জোসনা, চায়না, রেহানা, শারমিন, হাজেরা, পাপিয়া পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের হাবিবা আনোয়ারা,সুপ্তি, স্বপ্না, লাভলী, রাশিদা, রেহানা, রোকেয়া, আমিরুন, সালেহা, প্রমুখ।

আলোচনা শেষে মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ, ১৫ আগষ্টে কালো রাতে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল সদস্য, জাতীয় চার নেতা দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য সকল শহীদদেও আত্মার মাগফেলার কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়। দেয়া পরিচালনা করেন জেলা মহিলা আ.লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পদাক জান্নাতুল ফেরদৌস জান্নাত।

সবশেষে কেক কাটার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমপ্তি হয়।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন