পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের (১৩তম ব্যাচের) শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত

পাবিপ্রবির ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন ভিসি ড. হাফিজা খাতুন। ছবি: এবিএম ফজলুর রহমান

স্বতঃকণ্ঠ অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৫৮ অপরাহ্ন, ২৪ মে ২০২২

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের (১৩তম ব্যাচের) শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস চত্বরে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ফুল দিয়ে নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেন উপাচার্য। এ সময় নবাগত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, লেখাপড়া ও চরিত্র গঠনের মধ্য দিয়ে নিজেদের সেইভাবে গড়ে তুলতে হবে, যাতে বিশ্বে রোল মডেল হতে পারে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষা ও গবেষণায় পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

উপাচার্য বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি তোমাদের শিল্পসাহিত্য সংস্কৃতি খেলাধুলাসহ অন্যান্য কর্মকান্ডও বাড়াতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়, বিভাগ, নিজের বন্ধুবান্ধব সর্বোপরি মানুষকে ভালোবাসতে হবে। ভালোবাসতে না পারলে ভালো কাজ করা যায়না। বিশ্বকে জয় করার জায়গা বিশ্ববিদ্যালয়। উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান বলেন, একুশ শতকের বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতার জন্য অন্যতম মাধ্যম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। প্রযুক্তির বিকাশের জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয় নতুন নতুন জ্ঞান তৈরী করছে। গবেষণার নতুন নতুন ক্ষেত্র সৃষ্টি করছে। পাশাপাশি গণতন্ত্র, মুক্ত চিন্তা সর্বোপরি বিশ্ব মানব তৈরী করছি আমরা।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খানের সভাপতিত্বে এবং বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মীর হুমায়ূন কবীর ও ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রওশন ইয়াজদানীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. খায়রুল আলম, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক মো. সাইফুল ইসলাম, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. হাবিবুল্লাহ, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. কামরুজ্জামান, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) বিজন কুমার ব্রহ্ম, প্রক্টর ড. মো. হাসিবুর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা ড. সমীরণ কুমার সাহা। নবীন শিক্ষার্থী শমী কায়সার ও মুরসালিন হোসেন এবং অধ্যয়নরত সানজিদা স্মৃতি ও উৎসব কুমার দাস তাদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন। দ্বিতীয় পর্বে দুপুরে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মীর হুমায়ূন কবীর এবং ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রওশন ইয়াজদানী। অনুষ্ঠানে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। – বার্তা সংস্থা পিপ (পাবনা)

 

 আরও পড়ুনঃ

 আরও পড়ুনঃ

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন