ঢাকা ০৯:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

পুঠিয়ায় মেয়েকে হত্যার অভিযোগে বাবা-মা ও ভাই আটক

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ১২:৪২:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর ২০২২
  • / 138

নিজ মেয়ে(২০) কে হত্যার দায়ে বাবা-মা ও ভাইকে আটক করেছে পুঠিয়া থানা পুলিশ।

পুঠিয়া প্রতিনিধি:

পুঠিয়ায় হোসনে আরা প্রান্তি(২০) নামের এক মেয়েকে হত্যার অভিযোগে বাবা-মা ও ভাইকে আটক করেছে পুঠিয়া থানা পুলিশ।
আটককৃতরা হলো, নিহতের বাবা বাবু(৪৫), মা নাসরিন(৪০) ও ভাই নাসিম(১৮)। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাতে উপজেলার গন্ডগোহালী গ্রামের জামালগঞ্জ পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

পুঠিয়া থানা পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, গত ৫ মার্চ সকালে বাড়ির পাশের একটি আমগাছে প্রান্তির গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে লাশের ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

এসময় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) ময়না তদন্তের রিপোর্ট পুলিশের হাতে আসলে পুলিশ জানতে পারে প্রান্তিকে হত্যার পর আমগাছে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। যেন হত্যার ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে চালানো যায়।

এব্যাপারে পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহারওয়ার্দী হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিকভাবে নিহত প্রান্তির ভাই সবকিছু স্বীকার করেছে। এছাড়াও আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

এই রকম আরও টপিক

পুঠিয়ায় মেয়েকে হত্যার অভিযোগে বাবা-মা ও ভাই আটক

প্রকাশিত সময় ১২:৪২:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর ২০২২

পুঠিয়া প্রতিনিধি:

পুঠিয়ায় হোসনে আরা প্রান্তি(২০) নামের এক মেয়েকে হত্যার অভিযোগে বাবা-মা ও ভাইকে আটক করেছে পুঠিয়া থানা পুলিশ।
আটককৃতরা হলো, নিহতের বাবা বাবু(৪৫), মা নাসরিন(৪০) ও ভাই নাসিম(১৮)। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাতে উপজেলার গন্ডগোহালী গ্রামের জামালগঞ্জ পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

পুঠিয়া থানা পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, গত ৫ মার্চ সকালে বাড়ির পাশের একটি আমগাছে প্রান্তির গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে লাশের ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

এসময় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) ময়না তদন্তের রিপোর্ট পুলিশের হাতে আসলে পুলিশ জানতে পারে প্রান্তিকে হত্যার পর আমগাছে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। যেন হত্যার ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে চালানো যায়।

এব্যাপারে পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহারওয়ার্দী হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিকভাবে নিহত প্রান্তির ভাই সবকিছু স্বীকার করেছে। এছাড়াও আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।