ঢাকা ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

বাঘায় স্কুল ছাত্র সাব্বির হত্যার প্রধান আসামীর ফেসবুকে পোষ্ট ! অতপর আটক

বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় ০২:১৯:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ নভেম্বর ২০২২
  • / 122

বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃরাজশাহীর বাঘায় চাঞ্চল্যকর দশম শ্রেণীর ছাত্র সাব্বির হোসেন (১৬) হত্যার প্রধান আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার(২ নভেম্বর)রাতে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আটক করে পুলিশ।আটককৃত হত্যার প্রধান আসামী একই গ্রামের আড়পাড়া এলাকার সাইকেল মেকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মুন্না(১৮)।

জানা যায়,নিহত সাব্বির হোসেন(১৬) উপজেলার বাউসা ইউপির আড়পাড়া গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে এবং আড়পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। গত রোববার (৩০ অক্টোবর) বিকেল ৪ টায় পিতার ব্যাটারি চালিত ভ্যান নিয়ে ভাড়ায় যাত্রী পবিহনের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয় সাব্বির হোসেন (১৬) । তারপর থেকেই সে নিখোঁজ ছিলো।

নিহত সাব্বিরের চাচা শরিফুল ইসলাম জানান, আমার ভাই হায়দার আলী ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। প্রতিদিন সকালে বের হয়ে দুপুরের দিকে বাড়ি ফেরেন ভাই। লেখাপড়ার খরচ যোগাতে কোন কোন দিন বিকেলে ভাড়ায় যাত্রী পরিবহনের উদ্দেশ্য বের হতো ভাতিজা সাব্বির হোসেন।ফিরতো সন্ধ্যার আগে কিংবা কিছুৃ পরে। রোববার(৩০ অক্টোবর) স্কুল ছুটির পর ভাড়ায় চালানোর জন্য বের হয়েছিল। এরপর সে আর বাসায় না ফিরলে পরিবারের পক্ষ থেকে খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান মেলেনি।

সাব্বিরের নিকট থাকা ১০ হাজার টাকা মূল্যের রিয়েলমি এনড্রয়েড মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া যায়।

পরদিন সোমবার (৩১ অক্টোবর) বিকেল ৫টায় থানায় জিডি করা হয়। পরে পুলিশের অভিযানে গত সোমবার(৩১ অক্টোবর) দুপুর আড়াই টার দিকে চারঘাট-বাঘা সড়কের আটঘড়ি এলাকায় একটি আম বাগানে পরিত্যক্ত অবস্থায় ভ্যানটি পাওয়া গেছে কিন্তু ভ্যানে যুক্ত ব্যাটারি ছিলনা।

 বুধবার(২ নভেম্বর) মনিগ্রাম ইউপির তুলশীপুর মৌজার মনিগ্রাম দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন বজু মাষ্টারের আমবাগানের খাল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

লাশ উদ্ধারের কয়েক ঘন্টা পরেই ব্যাটারির সন্ধান পায় পুলিশ,তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ব্যাটারি বিক্রেতা মুন্নাকে থানায় নিয়ে আসে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুন্না স্বীকার করে সাব্বির কে সে হত্যা করে লাশটি সে নিজে টেনে হেঁচড়ে আমবাগানে রেখে এসেছে।কারণ জানতে চাইলে মুন্না জানায়, এক সুদ কারবারির কাছ থেকে সুদে টাকা নিয়ে পরিশোধ করতে পারছিলাম না। সুদের টাকা ফেরত দিতেই সে হত্যার ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আটককৃত মুন্না প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেছে। তার বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলার রুজু করা হয়েছে। আসামি কে বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিজ্ঞ আদালতে পেরন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মুন্নায় প্রথম তার নিজ ফেসবুক পোস্টে সাব্বিরের ছবি দিয়ে লিখে ছিলো ” এই ছেলেটি আজ সন্ধ্যা থেকে নিখোঁজ সাথে ভ্যান ছিলো কেউ যদি দেখে থাকেন তাহলে আমাদের জানাবেন,,।

এই রকম আরও টপিক

বাঘায় স্কুল ছাত্র সাব্বির হত্যার প্রধান আসামীর ফেসবুকে পোষ্ট ! অতপর আটক

প্রকাশিত সময় ০২:১৯:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ নভেম্বর ২০২২

বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃরাজশাহীর বাঘায় চাঞ্চল্যকর দশম শ্রেণীর ছাত্র সাব্বির হোসেন (১৬) হত্যার প্রধান আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার(২ নভেম্বর)রাতে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আটক করে পুলিশ।আটককৃত হত্যার প্রধান আসামী একই গ্রামের আড়পাড়া এলাকার সাইকেল মেকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মুন্না(১৮)।

জানা যায়,নিহত সাব্বির হোসেন(১৬) উপজেলার বাউসা ইউপির আড়পাড়া গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে এবং আড়পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। গত রোববার (৩০ অক্টোবর) বিকেল ৪ টায় পিতার ব্যাটারি চালিত ভ্যান নিয়ে ভাড়ায় যাত্রী পবিহনের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয় সাব্বির হোসেন (১৬) । তারপর থেকেই সে নিখোঁজ ছিলো।

নিহত সাব্বিরের চাচা শরিফুল ইসলাম জানান, আমার ভাই হায়দার আলী ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। প্রতিদিন সকালে বের হয়ে দুপুরের দিকে বাড়ি ফেরেন ভাই। লেখাপড়ার খরচ যোগাতে কোন কোন দিন বিকেলে ভাড়ায় যাত্রী পরিবহনের উদ্দেশ্য বের হতো ভাতিজা সাব্বির হোসেন।ফিরতো সন্ধ্যার আগে কিংবা কিছুৃ পরে। রোববার(৩০ অক্টোবর) স্কুল ছুটির পর ভাড়ায় চালানোর জন্য বের হয়েছিল। এরপর সে আর বাসায় না ফিরলে পরিবারের পক্ষ থেকে খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান মেলেনি।

সাব্বিরের নিকট থাকা ১০ হাজার টাকা মূল্যের রিয়েলমি এনড্রয়েড মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া যায়।

পরদিন সোমবার (৩১ অক্টোবর) বিকেল ৫টায় থানায় জিডি করা হয়। পরে পুলিশের অভিযানে গত সোমবার(৩১ অক্টোবর) দুপুর আড়াই টার দিকে চারঘাট-বাঘা সড়কের আটঘড়ি এলাকায় একটি আম বাগানে পরিত্যক্ত অবস্থায় ভ্যানটি পাওয়া গেছে কিন্তু ভ্যানে যুক্ত ব্যাটারি ছিলনা।

 বুধবার(২ নভেম্বর) মনিগ্রাম ইউপির তুলশীপুর মৌজার মনিগ্রাম দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন বজু মাষ্টারের আমবাগানের খাল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

লাশ উদ্ধারের কয়েক ঘন্টা পরেই ব্যাটারির সন্ধান পায় পুলিশ,তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ব্যাটারি বিক্রেতা মুন্নাকে থানায় নিয়ে আসে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুন্না স্বীকার করে সাব্বির কে সে হত্যা করে লাশটি সে নিজে টেনে হেঁচড়ে আমবাগানে রেখে এসেছে।কারণ জানতে চাইলে মুন্না জানায়, এক সুদ কারবারির কাছ থেকে সুদে টাকা নিয়ে পরিশোধ করতে পারছিলাম না। সুদের টাকা ফেরত দিতেই সে হত্যার ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আটককৃত মুন্না প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেছে। তার বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলার রুজু করা হয়েছে। আসামি কে বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিজ্ঞ আদালতে পেরন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মুন্নায় প্রথম তার নিজ ফেসবুক পোস্টে সাব্বিরের ছবি দিয়ে লিখে ছিলো ” এই ছেলেটি আজ সন্ধ্যা থেকে নিখোঁজ সাথে ভ্যান ছিলো কেউ যদি দেখে থাকেন তাহলে আমাদের জানাবেন,,।