বাঘায় জাকির হত্যার দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ

বাঘা উপজেলা প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর বাঘায় পদ্মার চরে প্রতিবন্ধীর গলা কেটে জবাই করে জাকির হোসেন (২১) নামের এক যুববকে হত্যার ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার না হওয়ায় এবং হত্যাকারিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল বুধবার সকালে জাকির হোসেন নিহতের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ চকরাজাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ব্যানারে চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়।এই মানববন্ধন ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,সুশিল সমাজ ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এতে বক্তারা বলেন, হত্যা মামলা দায়েরের ১২ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আসামীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি করেন তারা।

চকরাজাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তারেক ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন চকরাজাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আজিজুল আযম, চকরাজাপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি মোহাম্মদ বাবলু দেওয়ান, সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম, লক্ষীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মিজানুর রহমান, পল্লী চিকিৎসক জহুরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী, জেলা যুবলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, নিহত জাকির হোসেনের পিতা আবদুল খালেক, মাতা মাজেদা বেগম, বোন আমেনা বেগম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২৪ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৯টায় ঔষধ কেনার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়ে খুন হন উপজেলার চর এলাকার কালিদাসখালি গ্রামের আবদুল খালেক মোল্লার ছেলে জাকির হোসেন (২২)। রাতভর খোঁজাখুঁজির করে,পরদিন তার গ্রামের মটর ক্ষেতে গলাকাটা মরদেহ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় ২৫ জানুয়ারি রাতে জাকির হোসেনের বাবা আবদুল খালেক মোল্লা বাদি হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৫-৬ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, হত্যার বিষয়ে আসামী গ্রেফতারের জন্য তৎপর রয়েছি। আত্বগোপনে থাকায় অভিযান চালিয়েও তাদের গ্রেফতার করা সম্বব হচ্ছেনা।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন