ঢাকা ০৮:২১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

বিশ্বকাপ ফুটবল উন্মাদনা পাবনায়

পাবনা প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় ০৮:২৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২
  • / 41

বিশ্বকাপ ফুটবল উন্মাদনা পাবনায়

আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের জার্সি পতাকা বিক্রি হচ্ছে বেশি কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনা ছড়িয়ে পড়েছে পাবনায়।

আগামীকাল রোববার(২০ নভেম্বর) শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। বসতবাড়ির বিল্ডিং, রাস্তার পাশের বৃক্ষরাজিতে শোভা পাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলে অংশ গ্রহণকারী দেশের পতাকা। তবে তুলনামূলক আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের পতাকা পতপত করে উড়ছে বেশি।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইভেন্ট উপলক্ষে শহরের বিভিন্ন খেলার সামগ্রী বিক্রির দোকানে জার্সি বেচাকেনা জমে উঠতে শুরু করেছে। সাথে চলছে প্রিয় দলগুলোর পতাকা, ক্যাপসহ মাথার ফিতাও বেচাকেনা হচেছ।

গতবারের চেয়ে এবার বেচাকেনা বেশি বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। দীর্ঘ চার বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটছে। মাঝখানে আর মাত্র একদিন। এরপরেই শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় আসর ফুটবল বিশ্বকাপ।

এ উপলক্ষে পাবনা শহরের বিভিন্ন খেলাধুলার সামগ্রীর দোকানগুলো সেজে উঠেছে। বিভিন্ন বয়সী মানুষ কিনছেন প্রিয় দলের জার্সি।

জার্সি কিনতে শিশুরা যেমন আসছে, তেমনি আসছেন বয়স্করাও। তবে,শুধু জার্সি কেনাতেই সীমাবদ্ধ নেই ক্রেতারা।
পাশাপাশি চলছে পতাকা, ক্যাপ, মাথার ফিতার বেচাকেনা। ফুটপাত, বাজার, স্কুল কলেজের সামনে, শহরের ব্যস্ত এলাকায় ফেরিওয়ালারা বিক্রি করছেন পতাকা ও মাথার ফিতা।

শহরের বিভিন্ন জায়গার দোকানে বিভিন্ন দামে জার্সি বিক্রি হচ্ছে। বিক্রির প্রধান তালিকায় আর্জেন্টিনার জার্সি ও পতাকা। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। বেচাকেনার তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে জার্মানির জার্সি। এছাড়া বিক্রি হচ্ছে, ফ্রান্স, স্পেন, পর্তুগালের জার্সিও।

শহরের রবিউল মার্কেট ও বাজারে মোড়সহ বিভিন্ন অলি গলিতে ছোট জার্সি বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ৩০০ টাকায়। মাঝারি ও বড় জার্সি ৩৫০ থেকে ১,২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

বিভিন্ন দামে বিক্রি হচ্ছে পতাকা। কাগজের ছোট পতাকা বিক্রি হচ্ছে পাঁচ থেকে দশ টাকায়। কাপড়ের ছোট পতাকা ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। মাঝারি আকারের কাপড়ের পতাকা ৫০ থেকে ৬০ টাকা। বড় পতাকা ৮০ থেকে ১০০ টাকা। ১০ ফুট
আকারের পতাকা বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়। ৬ ফুট ১২০ টাকা। আড়াই ফুট আকারের পতাকা বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৫০ টাকায়।

চুড়িপট্টির পতাকা বিক্রেতা বাবুল আক্তার বলেন, পনেরো দিন আগে দোকানে ২০ হাজার টাকার পতাকা আনেন। ইতিমধ্যে দশ হাজার টাকার পতাকা বিক্রি হয়েছে। আর্জেন্টিনার পতাকার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। গতবারের চেয়ে এবার বিক্রি বেড়েছে।

রবিউল মার্কেটে খেলার সামগ্রী বিক্রেতা আকরাম হোসাইন বলেন, আর্জেন্টিনার জার্সি বেশি বিক্রি হচ্ছে। মেসির কারণে আর্জেন্টিনার ভক্ত সংখ্যা বেশি বলে মনে হচ্ছে। খেলা চলাকালীন বিক্রি আরও বাড়বে।

বিশ্বকাপ ফুটবল উন্মাদনা পাবনায়

প্রকাশিত সময় ০৮:২৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২

আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের জার্সি পতাকা বিক্রি হচ্ছে বেশি কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনা ছড়িয়ে পড়েছে পাবনায়।

আগামীকাল রোববার(২০ নভেম্বর) শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। বসতবাড়ির বিল্ডিং, রাস্তার পাশের বৃক্ষরাজিতে শোভা পাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলে অংশ গ্রহণকারী দেশের পতাকা। তবে তুলনামূলক আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের পতাকা পতপত করে উড়ছে বেশি।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইভেন্ট উপলক্ষে শহরের বিভিন্ন খেলার সামগ্রী বিক্রির দোকানে জার্সি বেচাকেনা জমে উঠতে শুরু করেছে। সাথে চলছে প্রিয় দলগুলোর পতাকা, ক্যাপসহ মাথার ফিতাও বেচাকেনা হচেছ।

গতবারের চেয়ে এবার বেচাকেনা বেশি বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। দীর্ঘ চার বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটছে। মাঝখানে আর মাত্র একদিন। এরপরেই শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় আসর ফুটবল বিশ্বকাপ।

এ উপলক্ষে পাবনা শহরের বিভিন্ন খেলাধুলার সামগ্রীর দোকানগুলো সেজে উঠেছে। বিভিন্ন বয়সী মানুষ কিনছেন প্রিয় দলের জার্সি।

জার্সি কিনতে শিশুরা যেমন আসছে, তেমনি আসছেন বয়স্করাও। তবে,শুধু জার্সি কেনাতেই সীমাবদ্ধ নেই ক্রেতারা।
পাশাপাশি চলছে পতাকা, ক্যাপ, মাথার ফিতার বেচাকেনা। ফুটপাত, বাজার, স্কুল কলেজের সামনে, শহরের ব্যস্ত এলাকায় ফেরিওয়ালারা বিক্রি করছেন পতাকা ও মাথার ফিতা।

শহরের বিভিন্ন জায়গার দোকানে বিভিন্ন দামে জার্সি বিক্রি হচ্ছে। বিক্রির প্রধান তালিকায় আর্জেন্টিনার জার্সি ও পতাকা। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। বেচাকেনার তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে জার্মানির জার্সি। এছাড়া বিক্রি হচ্ছে, ফ্রান্স, স্পেন, পর্তুগালের জার্সিও।

শহরের রবিউল মার্কেট ও বাজারে মোড়সহ বিভিন্ন অলি গলিতে ছোট জার্সি বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ৩০০ টাকায়। মাঝারি ও বড় জার্সি ৩৫০ থেকে ১,২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

বিভিন্ন দামে বিক্রি হচ্ছে পতাকা। কাগজের ছোট পতাকা বিক্রি হচ্ছে পাঁচ থেকে দশ টাকায়। কাপড়ের ছোট পতাকা ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। মাঝারি আকারের কাপড়ের পতাকা ৫০ থেকে ৬০ টাকা। বড় পতাকা ৮০ থেকে ১০০ টাকা। ১০ ফুট
আকারের পতাকা বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়। ৬ ফুট ১২০ টাকা। আড়াই ফুট আকারের পতাকা বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৫০ টাকায়।

চুড়িপট্টির পতাকা বিক্রেতা বাবুল আক্তার বলেন, পনেরো দিন আগে দোকানে ২০ হাজার টাকার পতাকা আনেন। ইতিমধ্যে দশ হাজার টাকার পতাকা বিক্রি হয়েছে। আর্জেন্টিনার পতাকার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। গতবারের চেয়ে এবার বিক্রি বেড়েছে।

রবিউল মার্কেটে খেলার সামগ্রী বিক্রেতা আকরাম হোসাইন বলেন, আর্জেন্টিনার জার্সি বেশি বিক্রি হচ্ছে। মেসির কারণে আর্জেন্টিনার ভক্ত সংখ্যা বেশি বলে মনে হচ্ছে। খেলা চলাকালীন বিক্রি আরও বাড়বে।