ঢাকা ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com

ভাঙ্গুড়ায় স্কুল ছাত্রীর অপহরণকারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ০৫:৩৯:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর ২০১৯
  • / 10

ভাঙ্গুড়া(পাবনা) প্রতিনিধি ঃপাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করতে গিয়ে স্থানীয় জনতা সাকিবুল(১৮) নামের এক যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য করেছে এলাকাবাসী।

সে পার্শ্ববর্তী চাটমোহর উপজেলার গুনাইগাছি ইউনিয়নের পৈলানপুর গ্রামের শহিদুল জোয়াদ্দারের পুত্র। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে অষ্টমনিষা বাজারের মর্ডান কোচিং সেন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষাদর্শী জানান, অষ্টমনিষা ইউনিয়নের মৌহাট গ্রামের শিক্ষার্থী জুলি খাতুন। সে রূপসী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণির ছাত্রী একই সাথে সে মর্ডান কোচিং সেন্টারেও কোচিং করে।

ঘটনার দিন যথারীতি অষ্টমনিষা মর্ডান কোচিং সেন্টারের যায় এবং দুপুরের দিকে ক্লাস শেষে বাহিরে আসে। এমন সময় পূর্ব থেকেই সিএনজি নিয়ে ওৎপেতে থাকা সাকিবুল শিক্ষার্থী জুলিকে জোর করে সিএনজিতে তোলার চেষ্টা করে ।

এসময় শিক্ষার্থীর সাথে সাকিবুলের ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শিক্ষার্থী চিৎকার করলে স্থানীয় জনতা এসে সাকিবুলকে আটক করে গণধোলাই দেয় এবং ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশকে অবগত করে। এরই মধ্যে সিএনজি চালক সিএনজি নিয়ে ঘটনার স্থান থেকে চম্পট দেয়।

খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের এসআই কামরুজ্জামান ও এএসআই সাজেদুল ঘটনা স্থল থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। বিষয়টি এলাকাতে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানান, সাকিবুল দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে আসার-যাওয়া পথে তাকে উত্যক্ত করত। কিন্তু এমন ঘটনা ঘটাবে এটা তার জানা ছিল না।

এ বিষয়ে হাসিনা মোমিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক বলেন, শিক্ষার্থীকে সিএনজিতে জোর করে তুলে নেওয়ার সময় ওই শিক্ষার্থীর চিৎকারে স্থানীয় জনতা এসে সাকিবুলকে আটক করে এবং গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য করা হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মোঃ মাসুদ রানা বলেন, ‘এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

ভাঙ্গুড়ায় স্কুল ছাত্রীর অপহরণকারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য

প্রকাশিত সময় ০৫:৩৯:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর ২০১৯

ভাঙ্গুড়া(পাবনা) প্রতিনিধি ঃপাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করতে গিয়ে স্থানীয় জনতা সাকিবুল(১৮) নামের এক যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য করেছে এলাকাবাসী।

সে পার্শ্ববর্তী চাটমোহর উপজেলার গুনাইগাছি ইউনিয়নের পৈলানপুর গ্রামের শহিদুল জোয়াদ্দারের পুত্র। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে অষ্টমনিষা বাজারের মর্ডান কোচিং সেন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষাদর্শী জানান, অষ্টমনিষা ইউনিয়নের মৌহাট গ্রামের শিক্ষার্থী জুলি খাতুন। সে রূপসী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণির ছাত্রী একই সাথে সে মর্ডান কোচিং সেন্টারেও কোচিং করে।

ঘটনার দিন যথারীতি অষ্টমনিষা মর্ডান কোচিং সেন্টারের যায় এবং দুপুরের দিকে ক্লাস শেষে বাহিরে আসে। এমন সময় পূর্ব থেকেই সিএনজি নিয়ে ওৎপেতে থাকা সাকিবুল শিক্ষার্থী জুলিকে জোর করে সিএনজিতে তোলার চেষ্টা করে ।

এসময় শিক্ষার্থীর সাথে সাকিবুলের ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শিক্ষার্থী চিৎকার করলে স্থানীয় জনতা এসে সাকিবুলকে আটক করে গণধোলাই দেয় এবং ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশকে অবগত করে। এরই মধ্যে সিএনজি চালক সিএনজি নিয়ে ঘটনার স্থান থেকে চম্পট দেয়।

খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের এসআই কামরুজ্জামান ও এএসআই সাজেদুল ঘটনা স্থল থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। বিষয়টি এলাকাতে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানান, সাকিবুল দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে আসার-যাওয়া পথে তাকে উত্যক্ত করত। কিন্তু এমন ঘটনা ঘটাবে এটা তার জানা ছিল না।

এ বিষয়ে হাসিনা মোমিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক বলেন, শিক্ষার্থীকে সিএনজিতে জোর করে তুলে নেওয়ার সময় ওই শিক্ষার্থীর চিৎকারে স্থানীয় জনতা এসে সাকিবুলকে আটক করে এবং গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ্য করা হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মোঃ মাসুদ রানা বলেন, ‘এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।