মেহেরপুর সদরে রাজস্ব খাতের অর্থায়নে বাস্তিবায়িত প্রদর্শনীর বারিগম-৩৩ জাতের প্রচার ও সম্প্রসারণের লক্ষে মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ মেহেরপুর সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে রাজস্ব খাতের অর্থায়নে বাস্তিবায়িত প্রদর্শনীর বারিগম-৩৩ জাতের প্রচার ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে এক মাঠ দিবস সদর উপজেলার সবিধপুর গ্রামে ১২ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত হয়।

গম ফসলের আধুনিক জাত পরিচিতি, রোগ বালাই ও পরিচর্যা এবং উৎপাদন বৃদ্ধি করাই ছিল মাঠ দিবসের মূল উদ্দেশ্য। উক্ত মাঠ দিবসে সদর উপজেলার সবিধপুর গ্রামের কৃষক মো. খোদা বক্কস মন্ডলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর সদরের উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নাসরিন পারভীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. এস এম সালে, সবিধপুর কৃষক মো. রফিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানের শুরুতে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. কামরুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্যে বারিগম-৩৩ জাতটির বৈশিষ্ট, জীবনকাল ও চাষাবাদ সর্ম্পকে আলোচনা করেন। রবি মৌসুমে চাষের জন্য (নভেম্বরের ২য় সপ্তাহ হতে ডিসেম্বরের ১ম সপ্তাহ) মাসে বীজ তলায় বীজ বপন করতে হয় এবং চৈত্র মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে মধ্য চৈত্র ফসল তোলার হয়। মাঠ দিবসের মাধ্যমে বিভিন্ন ফসলের উৎপাদন বাড়াতে কৃষক-কৃষানীদের সচেতন করা হচ্ছে বলে তিনি তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

প্রধান অতিথি উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নাসরিন পারভিন বক্তব্যে বলেন, বারিগম-৩৩ জাতটি জিঙ্ক সমৃদ্ধ (৫০-৫৫ জি পি এস) এবং কান্ড শক্ত হওয়ায় সহজে হেলে পড়ে না। নিশাণ পাতা চওড়া। ৬০-৬৪ দিনে শীষ বের হয়। শীষ লম্বা, প্রতি শীষে দানার পরিমাণ ৪২-৪৭ টি এবং ফলনের গুণগত বৈশিষ্ট্যঃ দানার রং সাদা, চকচকে এবং আকারে মাঝারি, হাজার দানার ওজন ৪৫-৫২ গ্রাম। ফলন হেক্টর প্রতি ৪-৫ টন। তিনি আরো বলেন, ব্রাস্ট প্রতিরোধী বারিগম-৩৩ জাতটির প্রদর্শনী স্থাপন করা হয়েছে। জীবনকাল ১০০-১১২ দিন হওয়ায় কৃষকদের জন্য রবি মৌসুমে এর চাষ খুবই উপযোগী। ফলন আশাব্যঞ্জক হওয়ায় কৃষকের জন্য এ জাতের গমচাষ খুবই লাভজনক বলে উপস্থিত কৃষক-কিষানীদের এর আবাদ বাড়ানোর জন্য অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানের আগে মো: মিয়ারুল ইসলাম এর বারিগম-৩৩ জাত প্রদর্শনী প্লটের আগত চাষীদের দেখানো হয়। আগত চাষীদের সকলেই এ জাতটি আবাদের সম্মতি জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠানে প্রায় শতাধিক কৃষক/কৃষাণী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্টনটি সঞ্চলনা করেন, মেহেরপুর সদর উপজেলা কৃষি অফিসের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. কামরুল ইসলাম।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন