যশোরের ঝিকরগাছায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কুমরী গ্রামে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১৪ বছরের এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর ভুক্তভোগী বিয়ের দাবীতে বাড়ীতে উঠলে তাকে বাড়ী থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, ঝিকরগাছার উপজেলার কুমরী গ্রামের অহেদ আলীর ছেলে শাহাজান কবির একই গ্রামের মিজানুর রহমানের স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দু’বছর যাবৎ শারীরিক মেলামেশায় লিপ্ত ছিল। দু’বছর তার সাথে দৈহিক মেলামেশার পর ধর্ষিত মেয়ে শাহাজানকে বিয়ে করার জন্য চাঁপ প্রয়োগ করে। এমন কি তাকে বিয়ে না করলে সে বিষ খেয়ে আত্নহত্যা করবে বলে জানায়। কিন্তু তখন লম্পট শাহাজান বিয়ে করতে অস্বীকার করে।

ধর্ষিতার মা কান্না জড়িত কন্ঠে আকুতি করে বলেন, আমার মেয়ের সরলতার সুযোগ নিয়ে শাহাজান আমার মেয়েকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। এখন বিয়ে করতে চচ্ছে না। আমি এ নিষ্ঠুর ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।

ধর্ষিতার পিতা মিজানের কাছে বিচারের ব্যাপারে জানতে চাইলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে আমাদের মেম্বারের সীদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য বজলুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে শোনা কথা জানতে পারি যে, শাহাজান এর সাথে জড়িত না।

এ ব্যাপারে বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ওসি শেখ শাহিনুরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে এখন কোন অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্হা নেব।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন