লকডাউনে সিরাজগঞ্জে ৬ হাজার ছিন্নমূল মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন এমপি ডাঃ মিল্লাত মুন্না

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  কঠোর লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায়, সুবিধা বঞ্চিত ও ছিন্নমূল মানুষের মুখে প্রতিদিন রান্না করা একবেলার খাবার খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন । 

সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডাঃ মোঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না। দুই সপ্তাহের কঠোর লকডাউন চলাবস্থায় গত ১১ দিনে প্রায় ৬ হাজার মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে  ভাসমান ও ছিন্নমূল ৫শ মানুষের মাঝে ১১ম  দিনের মতো খাবার বিতরণ করেন স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শহরের বাজার স্টেশন চত্বর অধ্যাপক ডাঃ মোঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি।

এদিকে গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খাবার বিতরণের সংবাদ প্রচারিত হওয়ায় সিরাজগঞ্জ শহরের বাজার স্টেশন চত্বরে প্রতিদিন দুপুরের খাবার নিতে রিক্সা চালক, দিনমজুর, রেল স্টেশনের ছিন্নমূল মানুষ ভীড় জমাচ্ছেন।

প্রতিদিন দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহরের বাজার স্টেশন চত্বর, যমুনার তীরবর্তী পুরাতন জেলখানা ঘাট সংলগ্ন এলাকায় ও শহরের বিভিন্ন জায়গায় ভাসমান ও ছিন্নমূল ৫শ মানুষকে এই খাদ্য সহায়তা তুলে দেয়া হচ্ছে। এ কার্যক্রম আরও তিনদিন চলবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা।

এ সময় সিরাজগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম সজল, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আল আমিন তালূকদার,

সাধারণ সম্পাদক রাশিদুল ইসলাম রাজু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবিব খোকাসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক জানান,

চলমান লকডাউনের ফলে ভাসমান ও ছিন্নমূল মানুষগুলো বাইরে যেতে পারছে না। তারাও কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। এসব মানুষের কথা চিন্তা করে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের ব্যানারে এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপির উদ্যোগে এ খাদ্য সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত এই খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি বলেন, রাজধানী ঢাকাতে ‘মানুষের পাশে আমরা’ শীর্ষক খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি শুরু করেছে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশন।

এ কর্মসূচির মাধ্যমে ঢাকায় ২০০ মানুষের একবেলা খাবারের ব্যবস্থা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সিরাজগঞ্জেও গত ২৩ জুলাই থেকে ৫০০ মানুষের মাঝে একবেলার খাবার বিতরণ হচ্ছে।

করোনা মহামারিতে যদি লকডাউন আরও বৃদ্ধি পায়, আমরা নতুন পরিকল্পনা করব ছিন্নমূল মানুষদের সহযোগিতা করার জন্য। দেশের এ সঙ্কট চলাকালীন বিত্তবানদের এগিয়ে আসার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, সবাই মিলে এগিয়ে আসার মাধ্যমেই এই বৈশ্বিক সঙ্কট দূর হবে।

আরও বলুনঃ নাটোরের বড়াইগ্রামে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ, অভিযুক্ত আটক 

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন