সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানাকে মাদক মুক্ত করতে একজন ওসির প্রানপণ লড়াই

আমিনুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জঃ সিরাজগঞ্জে কেলকুচি থানাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে মাদক মুক্ত ঘোষণা, ডাকাতি, ছিনতাই, চুরি, বাল্য বিয়ে, ইভটিজিং সহ সকল প্রকার অপরাধের সাথে যুদ্ধ ঘোষনা করে সকল মহলে প্রশংসিত হয়েছেন বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম।

তিনি ৯ অক্টোবর ২০১৮ সালে বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব্য গ্রহন করেন।

মাদক, জুয়া, সন্ত্রাস, জঙ্গি, নাশকতা মামলার সাজাপ্রাপ্ত ও ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তারসহ সার্বিক আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করায় ও আইনশৃঙ্খলাসহ সার্বিক বিষয়ে অবদান রাখায় গত (২৫ আগষ্ট) ২০১৯ সালে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইন ড্রিল সেডে বিশেষ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন তিনি।

এছাড়াও ২০১৮ সালে ১৮ নভেম্বর সিরাজগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি আনোয়ারুল ইসলাম। সে সময় সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার (এসপি) কার্যালয়ের সভাকক্ষে মাসিক কল্যাণ সভায় পুলিশ সুপার (এসপি) টুটুল চক্রবর্তী এ উপলক্ষে ক্রেস্ট ও সম্মাননা স্মারক তুলে দেন ওসি আনোয়ারুল ইসলাম’র হাতে।

বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আনোয়ারুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান, বেলকুচিতে মাদক বিরোধী অভিযান সফলতা দেখে সিরাজগঞ্জ-৫ বেলকুচি-চৌহালী আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মো. আব্দুল মমিন মন্ডল গত ১০ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধু স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আগামী ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের শতবার্ষিকী জন্মদিন উপলক্ষে বেলকুচিকে মাদকমুক্ত ঘোষনা করবেন বলে ঘোষনা দেন।

তিনি আরও জানান, আগামী সোনার বাংলা, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সবাইকে মাদকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে, সবার সহযোগিতা ও পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে মাদক মুক্ত রাখা সম্ভব। দেশের বর্তমান আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

টিম বেলকুচিকে সাথে নিয়ে ডাকাতি, ছিনতায়ের বিরুদ্ধে আমাদের কঠোর অভিযানের কারনেই আজ আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক। বিশেষ করে মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজে নিয়মিত মাদক বিরোধী, ইভটিজিং বিরোধী কার্যক্রমে সবাইকে সম্পৃক্ত চেষ্টা করছি। যার কারণে বেলকুচিতে ইভটিজিং ও আত্মহত্যার ঘটনা নেই।

বাল্য বিবাহ ও যৌতুক সর্ম্পকে ওসি জানান, যে কোন জায়গায় বাল্য বিবাহ হচ্ছে এমন খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করি এছাড়াও যৌতুক নেওয়ার বিরুদ্ধে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করি।

উলে­খ্য বেলকুচি থানায় যোগদানের আগে পাবনা জেলার আটঘরিয়া থানায় সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব্য পালন করায় সেই সময়ে পাবনা জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন