সিরাজগঞ্জে দুই ভাইকে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

আমিনুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জঃ সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় দুই ভাইকে গাছের সাথে রশি দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করার ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে সলঙ্গা থানার নলকা ইউনিয়নের কেসি ফরিদপুর গ্রামে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও ফুটেজ এর সুত্রধরে জানাযায়, সলঙ্গা থানার নলকা ইউনিয়নের কেসি ফরিদপুর গ্রামের হতদরিদ্র হোসেন আলীর পৈত্রিক বসতবাড়ীসহ জায়গা-জমি নিয়ে একই গ্রামের প্রভাবশালী দলিউর রহমান দুলাল, হাফেজ আলী, খায়রুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, ওমর ফারুক, আব্দুল হালিম ও মাহফুজুর রহমানের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

এরই জের ধরে গতকাল শুক্রবার সকালে প্রভাবশালী দলিউর রহমান দুলালের নেতৃত্বে একদল বহিরাগত ভাড়াটে সন্ত্রাসী দেশী অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দরিদ্র হোসেন আলীর বসতবাড়ী জোর পুর্বক দখল করার চেষ্টা চালায়। এসময় হোসেন আলীর ছেলে সুলতান মাহমুদ (৩০) ও রুবলে হোসেন (২৭) বাঁধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রভাবশালী দুলাল তাদের দুইজনকে গাছের সাথে রশি দিয়ে বাঁধার নির্দেশ দেয় এবং দুই ভাইকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে।

পরে হোসেন আলীর বাড়ীর ভিতরে প্রবেশ করে হোসেন আলীর স্ত্রী আমিনা খাতুন (৫০)কে মারপিট এবং বাড়ীঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। খবর পেয়ে সলঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং দ্রুত এক সাড়াশি অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত থাকায় ৪জনকে গ্রেফতার করে।

এরা হলেন, মৃত হরমুজ আলীর ছেলে দলিউর রহমান দুলাল (৪৫), গোলাম কিবরিয়া (২৭), মৃত হাছেন আলীর ছেলে আব্দুল হালিম(২৫), ও আব্দুল খালেকের ছেলে সুমন মাহমুদ (২২)।

এ বিষয়ে সলঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ জেড.জেড তাজুল হুদা জানান,ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজন। সরকার যখন সারাদেশ করোনা সংক্রমনরোধে লকডাউন ঘোষনা করেছে ঠিক সেই সময়ে এধরনের ঘটনায় আমরা ব্যথিত ও মর্মাহত।

এঘটনায় হোসেন আলী ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনের নামে মামলা করেছে। ইতোমধ্যে ৪জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে,বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন