সুবর্ণচরে চোরের উপদ্রব বৃদ্ধি

মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালীঃ নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার ২নং চরবাটা ইউনিয়নের ৭ নং পশ্চিম চরবাটা গ্রামের গত কাল সন্ধ্যার পর চুরি চেষ্টা করে চোরের দল। স্হানীয় (ডাবওয়ালাগো) বাড়িতে চুরির চেষ্টা করে চোরদল।

মাগরিবের নামাজের পর এক দল চোর, ঘরের মাটি খুড়া-খুড়ি করতে লাগে, তখন ঘরের বিতরে থাকা গৃহবধূ শব্দ শুনে ভয়ে চোর চোর বলে চিৎকার করে করে। চিৎকার শুনে বাড়ির ভিতরের লোক জন বের হলে, চোরের দল খোলা বিলের মধ্য দিয়ে ঘটনাস্থল পালিয়ে যায়।

সন্ধ্যায় কোন পুরুষ সদস্য বাড়িতে থাকে না, পুরুষেরা নিজেদের কাজ-কর্ম শেষ করে বাজারে চলে আসে। তাই এই সময় টা কে উপযুক্ত সময় মনে করেন চোরের দল।
গ্রামের পুরুষেরা এশার নামাজ আদায় করতে মসজিদে অথবা বাজারে অবস্হান করে। তাই সুযোগ টা কে কাজে লাগিয়ে চোরের দল বিভিন্ন বাড়িতে প্রবেশ করে, ঘরের দামি জিনিষপত্র, নগদ টাকা, অলংকার, দামি স্মার্ট ফোন নিয়ে চলে যায় বলে অভিযোগ করেন অনেকে।

গত দুই মাসে, চরবাটার বিভিন্ন বাড়িতে দোকান ঘরে চুরির সংবাদের খবর পাওয়া যায়। চর মজিদ গ্রামের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ছানা উল্ল্যাহ খোকন সওদাগর বাড়ি, চরজব্বর ব্যাবসায়ী বাড়ি, সহ বিভিন্ন স্হানে বেড়ে গেছে চোরের উপদ্রব।

তাই সুবর্নচর উপজেলা প্রশাসনের নিকট আবেদন করেন জনসাধারণ, যেন রাতে টহল পুলিশের টহল আরো জোরদার করা হয়। যেহেতু জন সাধারনের জান মালের, নিরাপত্তা প্রশাসনের উপর ন্যাস্ত করেছেন সরকার।

সুবর্নচর উপজেলার চরজব্বর থানা অফিসার ইনসার্চ শাহেদ উদ্দিনের বিভিন্ন কার্যক্রমে, অপরাধ দমনে, মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধারের উদ্যোগ গ্রহন ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যাবহার করে মোবাইল ফোন উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের হাতে পৌছে দেওয়ার সফলতার প্রসংসা করেন সুবর্নচরবাসী।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন