ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ে ঠিক করায় কিশোরীর আতহত্য !

ইচ্ছার রিুদ্ধে বিয়ে ঠিক করায় আখি খাতুন(১৩) নামের এক কিশোরী গলায় ফাঁস নিয়ে আতহত্য করেছে বলে যানা গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১২ জুলাই সকাল ৮টায়।

সে পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার লক্ষিপুর ইউনিয়নের রানীনগর গ্রামের দিন মজুর আর্শেদের মেয়ে।আখির মা মোছাঃ জরিনা খাতুন জানায়,তার মেয়ে শ্রীপুর দাখিল মাদরাসার ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী।

প্রতি দিনের মত সেদিনও সে সকালের কাজ শেষে তার পড়ার ঘরে পড়তে বসে।আমি রান্না ঘরে রান্নার কাজে ব্যাস্ত ছিলাম। কিছু সময় পর তার ছোট ছেলে এসে বলে মা আপা গলায় ওরনা জরিয়ে ঘরের ডাবের সাথে ফাঁস নিয়েছে ।

আমি ছুটে গিয়ে দেখি আমার মেয়ে মারা গেছে। কি কারনে মারা গেছে তাহা জানিনা, কারও সাথে আমার মেয়ের কোন ঝামেলা নাই। আতাইকুলা থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক এলাকাবাসী জানায়, সাঁথিয়া উপজেলার ভুলবাড়িয়া ইউনিয়নের স্বরগ্রামের মোঃ আবুল বাসারের ছেলে খোকনের সাথে আখির মন নেয়াদেওয়া চলছিল ।

কিন্তু আখির আতহত্য স্বজন জানতে পেরে তরিঘরি করে আতাইকুলা ইউনিয়নের শাখাড়িপাড়া গ্রামের মোঃ আঃ মতিনের ছেলে মোঃ রিপনের সাথে বিয়ে ঠিক করে এবং ঐদিনেই তার বিয়ের নিরেক্ষন দিতে আসার কথাছিল।

এই সংবাদ পেয়েই হয়তো আখি আতহত্য করতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। কেহবা বলছে বাল্যবিবাহে রাজি না হওয়ায় সে আতহত্য করেছে। কিন্তু আখির বাবা বাদি হয়ে খোকন,

খোকনের বাবা মোঃ আবুল বাসার ও মামা উকিলকে আসামি করে আতাইকুলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। আতাইকুলা থানা মামলা নং জিআর ৯৫/১৮ তারিখ ১২/৭/১৮।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন