ঢাকা ১০:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com // দৈনিক স্বতঃকণ্ঠ অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৭১১-৩৩৩৮১১, ০১৭৪৪-১২৪৮১৪

ইন্দোনেশিয়ায় ৫.২ মাত্রার ভূমিকম্প

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ০২:২৫:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ অগাস্ট ২০২৩
  • / 121

ইন্দোনেশিয়ায় ৫ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ব জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১০ আগস্ট) সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে তুয়ালের ১৪২ কিলোমিটার পূর্বে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। খবর এনডিটিভির।

ইউএসজিএসের তথ্য অনুযায়ী, ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে ৯০ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে। এর মূলকেন্দ্র ছিল যথাক্রমে ৫ দশমিক ৭৭৭ ডিগ্রি দক্ষিণ এবং ১৩১ দশমিক ৪৭৮ ডিগ্রি দাঘ্রিমাংশে।

ভূমিকম্পে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহত বা অবকাঠামোর ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

তুয়াল ইন্দোনেশিয়ার মালুকো প্রদেশে অবস্থিত। এটি ভৌগলিকভাবে কেই দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে পড়েছে।

ইন্দোনেশিয়া তথাকথিত ‘প্যাসিফিক রিং অব ফায়ার’-এর ওপর অবস্থিত। যা অত্যন্ত সক্রিয় একটি সিসমিক জোন, যেখানে পৃথিবীর ভূত্বকের বিভিন্ন প্লেট মিলিত হয় এবং প্রচুর সংখ্যক ভূমিকম্প ও আগ্নেয়গিরি তৈরি করে।

এই রকম আরও টপিক

ইন্দোনেশিয়ায় ৫.২ মাত্রার ভূমিকম্প

প্রকাশিত সময় ০২:২৫:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ অগাস্ট ২০২৩

ইন্দোনেশিয়ায় ৫ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ব জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১০ আগস্ট) সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে তুয়ালের ১৪২ কিলোমিটার পূর্বে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। খবর এনডিটিভির।

ইউএসজিএসের তথ্য অনুযায়ী, ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে ৯০ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে। এর মূলকেন্দ্র ছিল যথাক্রমে ৫ দশমিক ৭৭৭ ডিগ্রি দক্ষিণ এবং ১৩১ দশমিক ৪৭৮ ডিগ্রি দাঘ্রিমাংশে।

ভূমিকম্পে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহত বা অবকাঠামোর ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

তুয়াল ইন্দোনেশিয়ার মালুকো প্রদেশে অবস্থিত। এটি ভৌগলিকভাবে কেই দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে পড়েছে।

ইন্দোনেশিয়া তথাকথিত ‘প্যাসিফিক রিং অব ফায়ার’-এর ওপর অবস্থিত। যা অত্যন্ত সক্রিয় একটি সিসমিক জোন, যেখানে পৃথিবীর ভূত্বকের বিভিন্ন প্লেট মিলিত হয় এবং প্রচুর সংখ্যক ভূমিকম্প ও আগ্নেয়গিরি তৈরি করে।