গাজনার বিলে জেলেদের জাল কেটে দেওয়ার অভিযোগ

গাজনার বিল, পাবনা।

পাবনা সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ৯:৩২ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২

পাবনা সুজানগর হাটখালী ইউনিয়নের সাগতা গাজনার বিলে রাতের আধারে জেলেদের জাল কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে গত ১১ তারিখ শনিবার সুজাগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগীদের পক্ষে শ্রী মাধব হালদার।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, প্রতি বছরের মত এবার ও সরকারি জলমহাল লিজ গ্রহণ করে গাজনার বিলের জলাশয়ে বাঁধ তৈরি করে ২টা খরাজালের মাধ্যমে মাছ শিকার করে আসছিল। জেলে পরিবারের শতাধিক জেলে এই জলমহালের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে তাদের পরিবারের লোকজন বেঁচে থাকে। এই জলমহালই স্থানীয় জেলেদের জীবন জীবিকার উপার্জনের একমাত্র মাধ্যম। তাই সকল জেলে মিলে জলমাহল থেকে মাছ সংগ্রহ করার জন্য বাঁশ-খুটি ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু গত ১০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতের অন্ধকারে এলাকার স্থানীয় অভিযুক্ত মোঃ শরিফুলের যোগ সাজশে প্রায় ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী তাদের সমস্ত বাঁশ-খুটি ও খড়ার জাল কেটে তসনছ করে দেয়। এতে করে হিন্দু সম্পদায়ের জেলেদের জীবিকা নির্বাহ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। বাঁশ-খুটি ও জাল কেটে ফেলায় তাদের প্রায় ১০/১২ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

Gaznar Beel
গাজনার বিলে পেতে রাখা জেলেদের বাঁশ-খুঁটি। এখানেই পাতা ছিল মাছ ধরার সরঞ্জাম জাল।

এ বিষয়ে শ্রীমাধব হালদার বলেন, প্রায় ১৫/২০ জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে সমস্ত বাঁশখুটি ও জাল কেটে ফেলে, তাদের হাতে থাকা অস্ত্র-শস্ত্র দেখে আমরা পিছিয়ে আসি। তিনি জানান, আমিসহ আমাদের জেলে পরিবারের লোকজনকে তারা হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। জীবনে বেঁচে থাকা ও জীবিকা নির্বাহের জন্য আইনের আশ্রয় চান এসব জেলে পরিবারের সদস্যরা। এ বিষয়ে সুজানগর ও বেড়া থানার সার্কেল রবিউল ইসলাম বলেন, একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত পূর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 


 আরও পড়ুনঃ

 আরও পড়ুনঃ


একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন

[gs-fb-comments]