ঢাকা ০৮:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com // দৈনিক স্বতঃকণ্ঠ অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৭১১-৩৩৩৮১১, ০১৭৪৪-১২৪৮১৪

ফের কর্মবিরতিতে পাবনা পল্লী বিদ্যুত সমিতি-১ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় ০১:২৭:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪
  • / 30



পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে একীভূত করে অভিন্ন চাকরিবিধি বাস্তবায়ন, চুক্তিভিত্তিক ও অনিয়মিত কর্মচারীদের নিয়মিত করণের দুই দফা দাবিতে আজ ১ জুলাই থেকে ফের কর্মবিরতি পালন করছে পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

তবে বিশেষ ব্যবস্থায় জরুরি বিদ্যুৎ সেবা চালু রেখেই কর্মবিরতি পালন করছেন তারা।

সোমবার ১ জুলাই সকাল থেকে পাবনার চাটমোহর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর কার্যালয়ের সামনে কর্মবিরতি পালন করে তারা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন।

এ সময় বক্তব্য দেন, পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর এজিএম (আইটি) সামিরুল ইসলাম, জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হাসানুজ্জামান, লাইন টেকনিশিয়ান আখতার উদ্দিন, লাইন ম্যান সাজেদুর রহমান, মিটার রিডার (কাম ম্যাসেন্জার) সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, এজিএম (অর্থ) সিরাজুল ইসলাম, এজিএম (এইচ আর) কুদরত-ই ইলাহী, এজিএম (ওএন্ডএম) ইসরাফিল আলম মিলন, এজিএম (ওএন্ডএম) রউফুজ্জামান, এজিএম (ইএন্ডসি) সুফিয়া আমির।

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দাবি, দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজে নিয়োজিত পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সমিতির তদারকি প্রতিষ্ঠান পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) দ্বৈত নীতির কারণে ন্যায্য সুযোগ সুবিধা হতে বঞ্চিত তারা। একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করলেও পদ-পদবি, বেতন-ভাতা, বোনাসসহ পদোন্নতির ক্ষেত্রে চরম বৈষম্যের শিকার হয়ে আসছে।

আন্দোলনকারীরা আরো বলেন, এসব বৈষম্যের বিরুদ্ধে এবং অভিন্ন চাকরিবিধি বাস্তবায়নের দাবিতে চলতি বছরের ৫ মে থেকে কর্মবিরতি পালন করে কর্মকর্তা কর্মচারীরা। এরপর ১০ মে বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুরোধে সমস্যা সমাধানে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে আলোচনায় বসবে বিদ্যুৎ বিভাগের এমন আশ্বাসে কাজে ফিরে যান তারা। কিন্তু ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে আলোচনায় বসার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কোন উদ্যোগ নেওয়া হয় নাই এবং সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক সাসপেন্ড, সংযুক্ত ও স্ট্যান্ড রিলিজ যারা আছে সবাইকে এক সপ্তাহের মধ্য অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত থাকলেও সাসপেন্ড দুইজন ও স্ট্যান্ড রিলিজ দুইজনকে অদ্যাবধি অব্যাহতি দেওয়া হয় নাই। তাই আবারো বাধ্য হয়ে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের নিপিড়ন ও শোষণ থেকে বাঁচতে পুণরায় কর্মবিরতিতে যেতে হলো।

এই রকম আরও টপিক

ফের কর্মবিরতিতে পাবনা পল্লী বিদ্যুত সমিতি-১ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

প্রকাশিত সময় ০১:২৭:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪



পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে একীভূত করে অভিন্ন চাকরিবিধি বাস্তবায়ন, চুক্তিভিত্তিক ও অনিয়মিত কর্মচারীদের নিয়মিত করণের দুই দফা দাবিতে আজ ১ জুলাই থেকে ফের কর্মবিরতি পালন করছে পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

তবে বিশেষ ব্যবস্থায় জরুরি বিদ্যুৎ সেবা চালু রেখেই কর্মবিরতি পালন করছেন তারা।

সোমবার ১ জুলাই সকাল থেকে পাবনার চাটমোহর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর কার্যালয়ের সামনে কর্মবিরতি পালন করে তারা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন।

এ সময় বক্তব্য দেন, পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর এজিএম (আইটি) সামিরুল ইসলাম, জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হাসানুজ্জামান, লাইন টেকনিশিয়ান আখতার উদ্দিন, লাইন ম্যান সাজেদুর রহমান, মিটার রিডার (কাম ম্যাসেন্জার) সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, এজিএম (অর্থ) সিরাজুল ইসলাম, এজিএম (এইচ আর) কুদরত-ই ইলাহী, এজিএম (ওএন্ডএম) ইসরাফিল আলম মিলন, এজিএম (ওএন্ডএম) রউফুজ্জামান, এজিএম (ইএন্ডসি) সুফিয়া আমির।

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দাবি, দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজে নিয়োজিত পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সমিতির তদারকি প্রতিষ্ঠান পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) দ্বৈত নীতির কারণে ন্যায্য সুযোগ সুবিধা হতে বঞ্চিত তারা। একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করলেও পদ-পদবি, বেতন-ভাতা, বোনাসসহ পদোন্নতির ক্ষেত্রে চরম বৈষম্যের শিকার হয়ে আসছে।

আন্দোলনকারীরা আরো বলেন, এসব বৈষম্যের বিরুদ্ধে এবং অভিন্ন চাকরিবিধি বাস্তবায়নের দাবিতে চলতি বছরের ৫ মে থেকে কর্মবিরতি পালন করে কর্মকর্তা কর্মচারীরা। এরপর ১০ মে বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুরোধে সমস্যা সমাধানে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে আলোচনায় বসবে বিদ্যুৎ বিভাগের এমন আশ্বাসে কাজে ফিরে যান তারা। কিন্তু ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে আলোচনায় বসার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কোন উদ্যোগ নেওয়া হয় নাই এবং সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক সাসপেন্ড, সংযুক্ত ও স্ট্যান্ড রিলিজ যারা আছে সবাইকে এক সপ্তাহের মধ্য অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত থাকলেও সাসপেন্ড দুইজন ও স্ট্যান্ড রিলিজ দুইজনকে অদ্যাবধি অব্যাহতি দেওয়া হয় নাই। তাই আবারো বাধ্য হয়ে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের নিপিড়ন ও শোষণ থেকে বাঁচতে পুণরায় কর্মবিরতিতে যেতে হলো।