ঢাকা ১১:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
সারাদেশের জেলা উপোজেলা পর্যায়ে দৈনিক স্বতঃকণ্ঠে সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে । আগ্রহী প্রার্থীগন জীবন বৃত্তান্ত ইমেইল করুন shatakantha.info@gmail.com // দৈনিক স্বতঃকণ্ঠ অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৭১১-৩৩৩৮১১, ০১৭৪৪-১২৪৮১৪

পহেলা জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত সময় ০৯:২৭:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ জুন ২০২২
  • / 146

আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেন

১ জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন। ছবি: সংগৃহীত

নীলফামারী সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:২৫ সন্ধ্যা, ১ জুন ২০২২

১ জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন

বহুল প্রতিক্ষিত ‘মিতালী এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি ভারতের পশ্চিম বঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি ষ্টেশন থেকে ছেড়ে এসে ভারতীয় সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বুধবার দুপুর ২টা ১০ মিনিটে বাংলাদেশের উত্তরের সীমান্ত জেলা নীলফামারীর চিলাহাটি রেল ষ্টেশনে পৌঁছায়।

এ সময় চিলাহাটি রেল স্টেশন ও বাজার এলাকায় উৎসুক জনতায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। ২০ মিনিট বিলম্বে আসা ট্রেনটি প্রায় ৩৫ মিনিট চিলাহাটি ষ্টেশনে যাত্রা বিরতির পর ২টা ৪৫ মিনিটে ১০টি র‌্যাক নিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের ১টি ইঞ্জিন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

ট্রেনটি চিলাহাটি রেলওয়ে ষ্টেশনে আসার পর বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোনের মহাব্যবস্থাপক অসিম কুমার তালুকদার ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষকে অভিবাদন জানান।

এ সময় তারসাথে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিওপিএস শহিদুল ইসলাম, সিসিএম আহসান উল্লাহ ভূঁইয়া, সিই কুদরত-ই-খুদা, সিএমই মনিরুজ্জামান ফিরোজ, সিইই সফিকুল ইসলাম, সিসি/ আরএনবি আসাবুল ইসলাম, ডিআরএম শহিদুল ইসলাম, ডিইএন/২ আব্দুর রহিম, ডিএমই/ লোকো তাপস কুমার প্রমুখ।

মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন ভারতীয় রেলের ট্রেন পরিচালক কৌশিক ঘোষ, লোকো মাষ্টার বিবেকানন্দ চৌধুরী ও সহকারী লোকো মাষ্টার রাকসান কুমার।

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোনের মহাব্যবস্থাপক অসিম কুমার জানান, মোট ১০টি র‌্যাক নিয়ে বাংলাদেশে আসে ট্রিনটি। এর মধ্যে ৪টি এসি বাথ, ৪টি এসি চেয়ার, ১টি পাওয়ার ভ্যান ও ১টি ব্রেক ভ্যান।

সূত্র জানায়, ঢাকা থেকে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি রেল ষ্টেশন পর্যন্ত ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে এসি বাথ প্রতিজন ৫ হাজার ২৫৫ টাকা, এসি সিট ৩ হাজার ৪২০ টাকা, এসি চেয়ার ২ হাজার ৭৮০ টাকা।

আজ বুধবার মোট ১৮ জন যাত্রী নিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসে ট্রেনটি। এদের মধ্যে ছিলেন ১৩ জন বাংলাদেশী নাগরিক ও ৫ জন ভারতীয় নাগরিক।

বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম ও ভারতের রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব ভার্চুয়ালি ট্রেনটির উদ্বোধন করেন ভারতের দিল্লী থেকে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের মহা-ব্যবস্থাপক অসিম কুমার তালুকদার বলেছেন, বাংলাদেশ-ভারতের ভিসাসহ অন্যান্য জটিলতার অবসান হওয়ায় পহেলা জুন থেকে মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেনটি দিনে ৪৫৬ জন রাতে ৪০৮ যাত্রী নিয়ে ভারত সীমান্তের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে বাংলাদেশ সীমান্তের নীলফামারীর চিলাহাটি হয়ে ঢাকা ক্যান্টমেন্ট পর্যন্ত চলাচল করবে। এই ট্রেনটি সপ্তাহে দু’দিন রবিবার ও বুধবার চলবে।

সূত্র মতে, বাংলাদেশের ঢাকা ক্যান্টমেন্ট থেকে নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত সপ্তাহের সোমবার ও বৃহস্পতিবার চলাচল করবে। যাত্রীবাহী মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে রংপুর বিভাগের পাসপোর্টধারী যাত্রীর জন্য দুটি কোচ বরাদ্দ থাকলেও আপাতত চিলাহাটি ষ্টেশনের অবকাঠামো কাস্টম ইমিগ্রেসন ব্যবস্থা না থাকার কারণে পাসপোর্টধারী যাত্রীরা চিলাহাটি থেকে যাতাযাত করতে পারবেন না। শুধু মাত্র ঢাকা ক্যান্টমেন্ট ও ভারতের নিউ জলাপাইগুড়ি (এনজেপি) থেকে যাত্রী যাতাযাত করতে পারবে। এই ট্রেনে ভ্রমণকারী যাত্রীদের অবশ্যই কোভিট-১৯’র টিকা গ্রহণের সনদ থাকতে হবে।

এর আগে গত ২৭ মার্চ বাংলাদেশ-ভারত মিতালী এক্সপ্রেস আন্তঃদেশীয় ট্রেনটি চলাচলের ভার্চুয়াল উদ্ধোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

উল্লেখ্য দীর্ঘ ৫৭ বছর ধরে বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশ-ভারত রেলপথটি পুনরায় চালু হলো।

* ব্রিটিশ আমলে উত্তরবঙ্গের সাথে সমস্ত যোগাযোগ ছিল বাংলার পূর্বাঞ্চল দিয়ে। ১৮৭৮ সাল থেকে, কোলকাতা থেকে শিলিগুড়ি পর্যন্ত রেলপথটি ছিল দুটি ল্যাপে। প্রথম ল্যাপটি ছিল ইস্টার্ন বেঙ্গল স্টেট রেলওয়ের সাথে শিয়ালদহ থেকে পদ্মা নদীর দক্ষিণ তীরে ভেড়ামারার দামুকদিয়া ঘাট পর্যন্ত, তারপর একটি ফেরিতে করে নদী পেরিয়ে এবং যাত্রার দ্বিতীয় ল্যাপ শুরু। উত্তরবঙ্গ রেলওয়ের একটি ৩৩৬ কিমি মিটার-গেজ লাইন পদ্মার উত্তর তীরে সাঁড়াঘাটকে জলপাইগুড়ি (শিলিগুড়ি)-র সাথে সংযুক্ত করে।

নীলফামারী/মোশফিকুর ইসলাম

 

 আরও পড়ুনঃ

 আরও পড়ুনঃ

পহেলা জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন

প্রকাশিত সময় ০৯:২৭:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ জুন ২০২২
১ জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন। ছবি: সংগৃহীত

নীলফামারী সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:২৫ সন্ধ্যা, ১ জুন ২০২২

১ জুন থেকে চালু হলো ঢাকা-জলপাইগুড়ি আন্তঃদেশীয় মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন

বহুল প্রতিক্ষিত ‘মিতালী এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি ভারতের পশ্চিম বঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি ষ্টেশন থেকে ছেড়ে এসে ভারতীয় সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বুধবার দুপুর ২টা ১০ মিনিটে বাংলাদেশের উত্তরের সীমান্ত জেলা নীলফামারীর চিলাহাটি রেল ষ্টেশনে পৌঁছায়।

এ সময় চিলাহাটি রেল স্টেশন ও বাজার এলাকায় উৎসুক জনতায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। ২০ মিনিট বিলম্বে আসা ট্রেনটি প্রায় ৩৫ মিনিট চিলাহাটি ষ্টেশনে যাত্রা বিরতির পর ২টা ৪৫ মিনিটে ১০টি র‌্যাক নিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের ১টি ইঞ্জিন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

ট্রেনটি চিলাহাটি রেলওয়ে ষ্টেশনে আসার পর বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোনের মহাব্যবস্থাপক অসিম কুমার তালুকদার ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষকে অভিবাদন জানান।

এ সময় তারসাথে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিওপিএস শহিদুল ইসলাম, সিসিএম আহসান উল্লাহ ভূঁইয়া, সিই কুদরত-ই-খুদা, সিএমই মনিরুজ্জামান ফিরোজ, সিইই সফিকুল ইসলাম, সিসি/ আরএনবি আসাবুল ইসলাম, ডিআরএম শহিদুল ইসলাম, ডিইএন/২ আব্দুর রহিম, ডিএমই/ লোকো তাপস কুমার প্রমুখ।

মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন ভারতীয় রেলের ট্রেন পরিচালক কৌশিক ঘোষ, লোকো মাষ্টার বিবেকানন্দ চৌধুরী ও সহকারী লোকো মাষ্টার রাকসান কুমার।

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোনের মহাব্যবস্থাপক অসিম কুমার জানান, মোট ১০টি র‌্যাক নিয়ে বাংলাদেশে আসে ট্রিনটি। এর মধ্যে ৪টি এসি বাথ, ৪টি এসি চেয়ার, ১টি পাওয়ার ভ্যান ও ১টি ব্রেক ভ্যান।

সূত্র জানায়, ঢাকা থেকে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি রেল ষ্টেশন পর্যন্ত ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে এসি বাথ প্রতিজন ৫ হাজার ২৫৫ টাকা, এসি সিট ৩ হাজার ৪২০ টাকা, এসি চেয়ার ২ হাজার ৭৮০ টাকা।

আজ বুধবার মোট ১৮ জন যাত্রী নিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসে ট্রেনটি। এদের মধ্যে ছিলেন ১৩ জন বাংলাদেশী নাগরিক ও ৫ জন ভারতীয় নাগরিক।

বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম ও ভারতের রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব ভার্চুয়ালি ট্রেনটির উদ্বোধন করেন ভারতের দিল্লী থেকে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের মহা-ব্যবস্থাপক অসিম কুমার তালুকদার বলেছেন, বাংলাদেশ-ভারতের ভিসাসহ অন্যান্য জটিলতার অবসান হওয়ায় পহেলা জুন থেকে মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেনটি দিনে ৪৫৬ জন রাতে ৪০৮ যাত্রী নিয়ে ভারত সীমান্তের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে বাংলাদেশ সীমান্তের নীলফামারীর চিলাহাটি হয়ে ঢাকা ক্যান্টমেন্ট পর্যন্ত চলাচল করবে। এই ট্রেনটি সপ্তাহে দু’দিন রবিবার ও বুধবার চলবে।

সূত্র মতে, বাংলাদেশের ঢাকা ক্যান্টমেন্ট থেকে নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত সপ্তাহের সোমবার ও বৃহস্পতিবার চলাচল করবে। যাত্রীবাহী মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে রংপুর বিভাগের পাসপোর্টধারী যাত্রীর জন্য দুটি কোচ বরাদ্দ থাকলেও আপাতত চিলাহাটি ষ্টেশনের অবকাঠামো কাস্টম ইমিগ্রেসন ব্যবস্থা না থাকার কারণে পাসপোর্টধারী যাত্রীরা চিলাহাটি থেকে যাতাযাত করতে পারবেন না। শুধু মাত্র ঢাকা ক্যান্টমেন্ট ও ভারতের নিউ জলাপাইগুড়ি (এনজেপি) থেকে যাত্রী যাতাযাত করতে পারবে। এই ট্রেনে ভ্রমণকারী যাত্রীদের অবশ্যই কোভিট-১৯’র টিকা গ্রহণের সনদ থাকতে হবে।

এর আগে গত ২৭ মার্চ বাংলাদেশ-ভারত মিতালী এক্সপ্রেস আন্তঃদেশীয় ট্রেনটি চলাচলের ভার্চুয়াল উদ্ধোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

উল্লেখ্য দীর্ঘ ৫৭ বছর ধরে বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশ-ভারত রেলপথটি পুনরায় চালু হলো।

* ব্রিটিশ আমলে উত্তরবঙ্গের সাথে সমস্ত যোগাযোগ ছিল বাংলার পূর্বাঞ্চল দিয়ে। ১৮৭৮ সাল থেকে, কোলকাতা থেকে শিলিগুড়ি পর্যন্ত রেলপথটি ছিল দুটি ল্যাপে। প্রথম ল্যাপটি ছিল ইস্টার্ন বেঙ্গল স্টেট রেলওয়ের সাথে শিয়ালদহ থেকে পদ্মা নদীর দক্ষিণ তীরে ভেড়ামারার দামুকদিয়া ঘাট পর্যন্ত, তারপর একটি ফেরিতে করে নদী পেরিয়ে এবং যাত্রার দ্বিতীয় ল্যাপ শুরু। উত্তরবঙ্গ রেলওয়ের একটি ৩৩৬ কিমি মিটার-গেজ লাইন পদ্মার উত্তর তীরে সাঁড়াঘাটকে জলপাইগুড়ি (শিলিগুড়ি)-র সাথে সংযুক্ত করে।

নীলফামারী/মোশফিকুর ইসলাম

 

 আরও পড়ুনঃ

 আরও পড়ুনঃ